kalerkantho

বুধবার । ১২ মাঘ ১৪২৮। ২৬ জানুয়ারি ২০২২। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সবিশেষ

ডিএনএ পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণে বড় অগ্রগতি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিএনএ পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণে বড় অগ্রগতি

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, ডিএনএ অণুুর মতো করে তথ্য-উপাত্ত সংরক্ষণে বড় ধরনের অগ্রগতি অর্জন করতে পেরেছেন তাঁরা। তথ্য সংরক্ষণের অন্য উপায়গুলোর চেয়ে এটি আরো সুসমন্বিত ও দীর্ঘস্থায়ী।

বর্তমানে তথ্য সংরক্ষণের জন্য কম্পিউটারে চৌম্বকীয় হার্ড ড্রাইভ ব্যবহার করা হয়, যা অনেক জায়গা দখল করে। এ ছাড়া একটা সময় পর তা বদলাতেও হয়।

বিজ্ঞাপন

প্রাণিদেহের অনুসরণে ডিএনএ পদ্ধতিতে সংরক্ষণের মাধ্যমে ক্ষুদ্র অণুতে বিপুল পরিমাণ তথ্য-উপাত্ত সংরক্ষণ করা যাবে। এসব তথ্য হাজার হাজার বছর পর্যন্ত সুরক্ষিত থাকবে।

যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টার সংশ্লিষ্ট গবেষকদলটি এ লক্ষ্যে একটি চিপ তৈরি করেছে, যা বিদ্যমান ডিএনএ স্টোরেজের তুলনায় শতগুণ পর্যন্ত তথ্য সংরক্ষণ করতে পারবে।

জর্জিয়া টেক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (জিটিআরআই) জ্যেষ্ঠ গবেষক বিজ্ঞানী নিকোলাস গাইস বলেন, ‘আমাদের নতুন চিপটির ঘনত্ব বর্তমান বাণিজ্যিক ডিভাইসের তুলনায় ১০০ গুণ পর্যন্ত বেশি। ’ 

নতুন প্রযুক্তিটি কাজ করে ডিএনএর একেকটি অনন্য গুচ্ছ তৈরির মাধ্যমে; একেকবার একটি করে। এসব গুচ্ছ হলো ডিএনএ গঠনকারী চারটি বেইস; যেমন—অ্যাডেনিন, সাইটোসিন, গুয়ানিন ও থাইমিন। পরে এসব বেইস তথ্য ইনকোড করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। এই পদ্ধতি প্রথাগত কম্পিউটিংয়ের বাইনারি পদ্ধতি ‘এক’ ও ‘শূন্য’র মতো করে কাজ করে।  

ডিএনএর এই কার্যক্ষমতা বাড়ানোর জন্য তৈরি করা চিপকে বলা হয় মাইক্রোওয়েলস। এটির পুরুত্ব মাত্র কয়েক শ ন্যানোমিটার, যা কাগজের চেয়েও কম।

নিকোলাস গাইস বলেন, ডিএনএ অণু পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণ তুলনামূলকভাবে ব্যয়বহুল।  

সূত্র : বিবিসি।



সাতদিনের সেরা