kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ মাঘ ১৪২৮। ২৭ জানুয়ারি ২০২২। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সবিশেষ

মহাকাশের জঞ্জাল থেকে রকেটের জ্বালানি!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহাকাশের জঞ্জাল থেকে রকেটের জ্বালানি!

অস্ট্রেলিয়ার একটি কম্পানি নিকট মহাকাশে ঘুরে বেড়ানো ধ্বংসাবশেষ থেকে রকেটের জ্বালানি তৈরির পরিকল্পনা করছে। আর কাজটা হবে মহাকাশেই।

পৃথিবীর কক্ষপথের চারপাশ নানা ধরনের বর্জ্যে ভরে যাচ্ছে। অচল কৃত্রিম উপগ্রহ (স্যাটেলাইট) ও রকেটের যন্ত্রাংশের মতো নানা আকারের অগুনতি বর্জ্য ঘণ্টায় ২৮ হাজার মাইলেরও বেশি গতিতে ঘুরছে।

বিজ্ঞাপন

এসব বর্জ্য আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (আইএসএস) এবং বিভিন্ন ধরনের কৃত্রিম উপগ্রহের জন্য হুমকি। বিপুল গতিতে ছুটে চলা একটি ছোট স্ক্রু কিংবা রঙের চল্টাও মহাকাশ স্টেশন কিংবা সেখানে অবস্থানরত মানুষের জন্য ঝুঁকি তৈরি করবে।

সম্প্রতি রাশিয়ার একটি কৃত্রিম উপগ্রহ ধ্বংস করার ঘটনা এ সমস্যা নিয়ে উদ্বেগ আরো বাড়িয়েছে। গত সপ্তাহে তারা একটি স্যাটেলাইটবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে নিজেদেরই অকেজো এক স্যাটেলাইট উড়িয়ে দেয়। যুক্তরাষ্ট্র ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছে, এর থেকে সৃষ্ট অসংখ্য ধ্বংসাবশেষ সবার স্বার্থকেই হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার কম্পানি নিউম্যান স্পেস এক ধরনের বিশেষ ‘প্রপালশন সিস্টেম’ তৈরি করেছে, যার মাধ্যমে মহাকাশযানের মিশনের সম্প্রসারণ, কৃত্রিম উপগ্রহকে স্থানান্তর তথা কক্ষপথ থেকে সরানো যাবে। নিউম্যান কম্পানি মহাকাশের বর্জ্য ব্যবহার করে ওই সিস্টেমটির জন্য জ্বালানি তৈরিতে আরো তিনটি কম্পানির সঙ্গে মিলে কাজ করছে। জাপানি প্রতিষ্ঠান অ্যাস্ট্রোস্কেল মহাকাশের জঞ্জালের টুকরা ধরায় স্যাটেলাইটের ব্যবহার দেখিয়েছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি কম্পানি বর্জ্য সংগ্রহ করে মহাকাশেই টুকরা টুকরা করতে উন্নত রোবটিকস প্রযুক্তি ব্যবহারের উদ্যোগ নিয়েছে। সিসলুনার নামের আরেক মার্কিন কম্পানি ধ্বংসাবশেষগুলো গলিয়ে ধাতব রডে পরিণত করতে কাজ করছে। সূত্র : গার্ডিয়ান।



সাতদিনের সেরা