kalerkantho

সোমবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

৫৮০ বছরের মধ্যে দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ দেখল বিশ্ব

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৫৮০ বছরের মধ্যে দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ দেখল বিশ্ব

চন্দ্রগ্রহণের সময় গতকাল রাজধানীর নয়াপল্টন এলাকা থেকে শেষ বিকেলে তোলা চাঁদের ছবি। সৌজন্য : তাসফিয়া তাহসিন পূর্ণতা

৫৮০ বছরের মধ্যে দীর্ঘতম খণ্ডগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ গতকাল শুক্রবার দেখা গেছে। ৬৪৮ বছরে আর এ ধরনের চন্দ্রগ্রহণের দেখা পাওয়া যাবে না। গতকাল চন্দ্রগ্রহণের মেয়াদ ছিল তিন ঘণ্টা ২৮ মিনিট ২৩ সেকেন্ড। আর সব পর্যায় ধরলে সব মিলিয়ে ছয় ঘণ্টার গ্রহণ হয়েছে।

শেষবার দীর্ঘ মেয়াদে চন্দ্রগ্রহণ হয়েছিল ১৪৪০ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি। ২৬৬৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি আবার এমন চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে।

সূর্যের আলো প্রতিফলিত হওয়ায় আমরা চাঁদ দেখতে পাই। চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদ, পৃথিবী ও সূর্য একই সরলরেখায় চলে আসে। চাঁদ ও সূর্যের মাঝে থাকে পৃথিবী। ফলে সূর্যের আলোকে পৃথিবী ঢেকে ফেলে। পৃথিবীর ছায়া পড়ে চাঁদে। ছায়ায় চাঁদের পুরোটা ঢাকা পড়লে বলা হয় পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ। আর অংশবিশেষের ক্ষেত্রে আংশিক বা খণ্ডগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ বলা হয়।

খণ্ডগ্রাস হলেও গতকাল ৯৭ শতাংশ গ্রহণ হয়েছে। অর্থাৎ চাঁদের ৯৭ শতাংশ ঢেকে ফেলেছিল পৃথিবী। এটি চলতি বছরে সর্বশেষ ও দ্বিতীয় চন্দ্রগ্রহণ। প্রথমটি দেখা গিয়েছিল ২৬ মে। নাসার তথ্য অনুযায়ী, শুরুতে ক্রমে আঁধারে ঢেকে গেলেও গ্রহণের এক পর্যায়ে লালচে রং ধারণ করে চাঁদ। শেষ দিকে আবার ক্রমে আঁধারে ঢেকে যেতে থাকে।

বাংলাদেশ সময় গতকাল দুপুর ১২টা ২ মিনিটে শুরু হয় পিনামব্রাল চন্দ্রগ্রহণ। পিনামব্রাল পর্যায়ে পৃথিবীর প্রচ্ছায়ায় না থেকে উপচ্ছায়ায় থাকে চাঁদ। মূল গ্রহণ দুপুর ১টা ১৯ মিনিটে শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল ৪টা ৪৭ মিনিটে। এরপর পিনামব্রালের পরবর্তী ধাপ শুরু হয়।

গতকাল এই চন্দ্রগ্রহণ দেখা গেছে চীন, জাপানসহ গোটা পূর্ব এশিয়ায়। এ ছাড়া উত্তর ইউরোপ, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলোতেও দেখা গেছে এই চন্দ্রগ্রহণ। বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিস ও বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন চন্দ্রগ্রহণ দেখার আয়োজন করেছিল।

 



সাতদিনের সেরা