kalerkantho

শনিবার । ৮ মাঘ ১৪২৮। ২২ জানুয়ারি ২০২২। ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

স্টিকার লাগেনি সব বাসে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্টিকার লাগেনি সব বাসে

রাজধানীতে কোন বাস ডিজেলে আর কোনটি গ্যাসে (সিএনজি) চলছে, এখনো তা পুরোপুরি চিহ্নিত করা হয়নি। তবে বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে কি না, তা তদারকি করতে অভিযান পরিচালনা করছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএর) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ প্রমাণিত হলে আর্থিক জরিমানা করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিভিন্ন রুটে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

অভিযান পরিস্থিতি দেখতে গতকাল মহাখালী বাস টার্মিনাল এলাকা পরিদর্শন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নজরুল ইসলাম। সেখানে তিনি যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার।

দূরপাল্লার বাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে সচিবকে জানানো হয়। তবে এ সময় টার্মিনালসংলগ্ন সড়কে বিভিন্ন সিটি বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার অভিযোগ পান তিনি। পরে সেখানে বিআরটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

গতকাল রাজধানী ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে বিআরটিএর ১০টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ অন্যান্য অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২৮৭টি ডিজেল, ৪৯টি সিএনজিচালিত বাস ও মিনিবাসের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এসব মামলায় তিন লাখ ৫৮ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

বিআরটিএর এনফোর্সমেন্ট বিভাগের পরিচালক সরওয়ার আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে না—যত দিন পর্যন্ত এমন সন্তোষজনক অবস্থায় যাওয়া না যাচ্ছে তত দিন অভিযান চলমান থাকবে। আমরা আজ (গতকাল) অনেক বাসে চিহ্নিতকরণ স্টিকার লাগিয়েছি। এই স্টিকার খুললে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। বাসে সঠিক স্টিকার লাগানো হচ্ছে কি না, সেটিও দেখা হচ্ছে। ’



সাতদিনের সেরা