kalerkantho

সোমবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সদস্য প্রার্থীকে হুমকি

বিনা ভোটে জয়ী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জিডি

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা   

২ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিনা ভোটে জয়ী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জিডি

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সয়দাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে বিনা ভোটে জয়ী হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান নবীদুল ইসলাম। তাঁর বড় ভাই বর্তমান ইউপি সদস্য আব্দুল মোমিনও বিনা ভোটে সদস্য পদে জয়ী হতে যাচ্ছেন।

চেয়ারম্যান ও তাঁর ভাইয়েরা ইউপি সদস্য পদে পছন্দের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে প্রতিপক্ষকে হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী ইউসুফ আলীর স্ত্রী আকলিমা খাতুন গত রবিবার সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

জিডিতে আকলিমা অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নবীদুল, তাঁর ভাই মোমিন ও আব্দুল মালেক ২৮ অক্টোবর সন্ধ্যায় পঞ্চসোনা পুনর্বাসন এলাকায় সদস্য পদপ্রার্থী ইউসুফ আলীর প্রচারে বাধা এবং তাঁর সন্তানকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন। নির্বাচন থেকে তাঁদের উত্খাত এবং বাড়িঘরে আগুন দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়। এ কারণে স্বামী-সন্তানের নিরাপত্তা চেয়ে তিনি জিডি করেন। চেয়ারম্যান বিনা ভোটে নির্বাচিত হতে যাওয়ায় দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১১ নভেম্বর এই ইউপিতে সদস্য পদে ভোট হবে।

সদস্য পদপ্রার্থী ইউসুফ আলীর ছেলে আব্দুল গাফফার বলেন, ‘নবীদুল ইসলাম ও তাঁর ভাইয়েরা বলে বেড়াচ্ছেন, এই ইউনিয়নে তাঁদের পছন্দের বাইরে কেউ নির্বাচিত হতে পারবে না। এসব কারণে আমরাসহ অনেক প্রার্থীই এখন শঙ্কায় রয়েছেন।’

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা, হুমকি-ধমকি এবং এলাকা থেকে উত্খাতের অভিযোগ এনে সয়দাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান নবীদুলসহ তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে এক ইউপি সদস্য প্রার্থীর স্ত্রী জিডি করেছেন। বিষয়টির তদন্ত চলছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউপি চেয়ারম্যান নবীদুল ইসলাম বলেন, ‘আমি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। সদস্যদের নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। সেখানে আমি কোনো হস্তক্ষেপ করব না।’ হুমকির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘জিডির তদন্তেই প্রমাণ হবে, ঘটনা সত্য নাকি মিথ্যা।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এর আগেও এই চেয়ারম্যান, তাঁর ভাই ও সহযোগীদের বিরুদ্ধে বসতবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট এবং প্রতারণার অভিযোগে আটটি মামলা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে একটি অভিযোগের তদন্ত করছে দুর্নীতি দমন কমিশনও (দুদক)।

 



সাতদিনের সেরা