kalerkantho

রবিবার । ৯ মাঘ ১৪২৮। ২৩ জানুয়ারি ২০২২। ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

কয়েক শ পণ্যবাহী ট্রাক ঘাটে আটকা, দুর্ভোগে চালকরা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ ও গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

২ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কয়েক শ পণ্যবাহী ট্রাক ঘাটে আটকা, দুর্ভোগে চালকরা

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটে পণ্যবাহী শত শত ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান। গত বুধবার মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে ফেরিডুবির পর থেকে দুই পারে এভাবেই আটকা পড়েছে বহু যানবাহন। এতে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন চালকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় বাড়তি চাপ পড়েছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটের উভয় ঘাটে। পাটুরিয়া নৌ রুটে ফেরিসংকট ও ঘাট সমস্যার কারণে চাপ আরো বেড়েছে। বাড়তি চাপের কারণে উভয় ঘাটে কয়েক দিন ধরে শত শত পণ্যবাহী ট্রাক আটকে পড়ায় যানজট কিছুতেই কমছে না। গতকাল সোমবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ আরো বাড়তে থাকলে ঘাট এলাকা থেকে নমগ্রাম পর্যন্ত সাড়ে তিন কিলোমিটার সড়কে ছয় শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক পারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে।

বিজ্ঞাপন

ঘাট কর্তৃপক্ষ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী বাস ও ছোট গাড়ি চলাচলের সুযোগ করে দেওয়ায় দু-তিন দিন সিরিয়ালে থেকে পণ্যবাহী ট্রাকগুলো ফেরি পার হওয়ার সুযোগ পায়। এই দীর্ঘ সময় আটকা থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ট্রাকচালকরা। দীর্ঘ সময় ট্রাকের সিরিয়ালে থাকায় খাওয়া-গোসল না করায় অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনেকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে পাটুরিয়ার পাঁচটি ঘাটের মধ্যে দুটি সচল রয়েছে। ফেরি ডুবে থাকায় ৫ নম্বর ঘাটটি বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া ১ নম্বর ঘাটে নাব্যতা সংকটে একটি পকেট বন্ধ রয়েছে। ২ নম্বর ঘাট বছরজুড়ে অদৃশ্য কারণে বন্ধ থাকে।

কথা হয় ট্রাকচালক হাকিমের সঙ্গে। তিনি ঢাকা থেকে শিশুখাদ্য নিয়ে যশোর যাচ্ছিলেন। ঢাকা থেকে পাটুরিয়া ঘাটে পৌঁছতে তাঁর আড়াই ঘণ্টা সময় লাগলেও ফেরি পার হতে দুই দিন ধরে অপেক্ষা করছেন। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সব কষ্ট আমাদের। বাস এলেই ফেরি পার হয়ে যাচ্ছে। আর আমাদের বসিয়ে রাখা হচ্ছে। ঠিকমতো খাওয়া, গোসল, বাথরুম করতে না পারায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। আমাদের কথা কেউ ভাবে না। ’

বিআইডাব্লিউটিসির পাটুরিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক মহীউদ্দিন রাসেল বলেন, ফেরিডুবির কারণে একটি ঘাট সম্পূর্ণ বন্ধ। ড্রেজিংয়ের কারণে আরো কয়েকটি ঘাট বন্ধ রয়েছে। সচল আছে ৩ ও ৪ নম্বর ঘাট। একদিকে ঘাট সমস্যা, অন্যদিকে আরেক রুটের যানবাহনের বাড়তি চাপে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

কয়েক দিন ধরে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরির উভয় ঘাটে সৃষ্টি হওয়া যানজট পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় পণ্যবাহী ট্রাকচালকদের ভোগান্তি কমেনি।

গতকাল দৌলতদিয়া ঘাটে গিয়ে দেখা গেছে, ফেরি পারের জন্য অপেক্ষায় সহস্রাধিক রাজধানীমুখী যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাকসহ অন্য যানবাহন। এর মধ্যে রয়েছে প্রায় ৬০০ পণ্যবোঝাই ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান।

দৌলতদিয়া ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ ফিডমিল পর্যন্ত রাস্তার এক পাশে পণ্যবোঝাই ট্রাকের দীর্ঘ সারি। আর দৌলতদিয়া ফেরিঘাট থেকে ১৩ কিলোমিটার দূরে গোয়ালন্দ মোড়ে আটকে আছে দৌলতদিয়া ঘাটগামী পণ্যবোঝাই তিন শতাধিক ট্রাক।

ট্রাকচালকরা জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথের দূরত্ব তিন কিলোমিটার। ফেরিতে সামান্য এই নৌপথ পার হতে এসে তাঁরা আটকে আছেন দীর্ঘ সিরিয়ালে। আটকা পড়া স্থানে নেই টয়লেট, গোসল ও খাবারের ব্যবস্থা। ফলে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন তাঁরা। দিনের পর দিন আটকে থাকায় মালপত্র নিয়ে সময়মতো গন্তব্যে পৌঁছতে পারছেন না তাঁরা। এ পরিস্থিতিতে বাজারে পণ্যসংকট সৃষ্টির পাশাপাশি মালিকরাও পড়ছেন লোকসানে।  



সাতদিনের সেরা