kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

মেয়রের নামে মামলা, অচল কক্সবাজার

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মেয়রের নামে মামলা, অচল কক্সবাজার

কক্সবাজার সদর থানায় হত্যাচেষ্টার মামলায় পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানসহ ১৪ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীকে আসামি করায় গতকাল রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন দলীয় নেতাকর্মীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

কক্সবাজার সদর মডেল থানায় হত্যাচেষ্টার একটি মামলায় পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানসহ ১৪ জন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীকে আসামি করায় বিক্ষোভ করেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। গতকাল সন্ধ্যার পর জেলা সদরের বিভিন্ন জায়গায় অচলাবস্থা তৈরি করেন নেতাকর্মীরা। মুজিবুর রহমান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক।

গত বুধবার রাতে সাগরপারের সুগন্ধা পয়েন্টে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি মুনাফ সিকদার ও তারেক নামে তাঁর এক সঙ্গীকে একদল দুর্বৃত্ত গুলি করে।

বিজ্ঞাপন

আহত মুনাফ বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত তারেক স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় গতকাল রবিবার সদর মডেল থানায় একটি মামলা হয়। মুনাফ সিকদারের বড় ভাই মো. শাহজাহান এই মামলা করেন। এতে মুজিবুর রহমানসহ ১৪ জনকে ঁঁ আসামি করা হয়।

পর্যটন শহরটি আকস্মিকভাবে অচল হয়ে পড়ায় শহরবাসীসহ সবাই দুর্ভোগের মুখে পড়ে। মেয়রের সমর্থক ও দলীয় লোকজন শহরের রাস্তা ও অলিগলিতে মিছিল বের করে এবং টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। এতে যান চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

একটি সূত্র জানিয়েছে, মামলায় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সারওয়ার কাবেরীকেও আসামি করা হয়েছে। মামলায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ২০-২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, ‘গত বুধবার সকালের ফ্লাইটে আমি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও দলীয় কাজে ঢাকা গিয়েছিলাম। রাতে সাগরপারের গুলির ঘটনায় আমার কোনো যোগসূত্র থাকার প্রশ্নই ওঠে না। মুনাফ নামের যে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছে তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ জমি দখলের বহু মামলা রয়েছে। ’

মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের এমপি আশেক উল্লাহ রফিক জানান, সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্যই অত্যন্ত গোপনে এ রকম একটি মিথ্যা মামলা করার মাধ্যমে পর্যটন শহরটিকে উত্তপ্তের চেষ্টা করা হয়েছে। এ বিষয়ে সদর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গিয়াসসহ ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাঁরা কোনো মন্তব্য করেননি।

আসামি করা হয়।

পর্যটন শহরটি আকস্মিকভাবে অচল হয়ে পড়ায় শহরবাসীসহ সবাই দুর্ভোগের মুখে পড়ে।

 মেয়রের সমর্থক ও দলীয় লোকজন শহরের রাস্তা ও অলিগলিতে মিছিল বের করে এবং টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। এতে যান চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে একটি সূত্র জানিয়েছে, মামলায় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সারওয়ার কাবেরীকেও আসামি করা হয়েছে। মামলায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ২০-২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, ‘গত বুধবার সকালের ফ্লাইটে আমি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও দলীয় কাজে ঢাকা গিয়েছিলাম। রাতে সাগরপারের গুলির ঘটনায় আমার কোনো যোগসূত্র থাকার প্রশ্নই ওঠে না। মুনাফ নামের যে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছে তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ জমি দখলের বহু মামলা রয়েছে। সুযোগসন্ধানীরা এ ঘটনাকে পুঁজি করেছে। ’

মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের এমপি আশেক উল্লাহ রফিক জানান, সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্যই অত্যন্ত গোপনে এ রকম একটি মিথ্যা মামলা করার মাধ্যমে পর্যটন শহরটিকে উত্তপ্তের চেষ্টা করা হয়েছে। এ বিষয়ে সদর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গিয়াসসহ ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাঁরা কোনো মন্তব্য করেননি।

 



সাতদিনের সেরা