kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

১৮টি হরিণের চামড়াসহ দুই পাচারকারী আটক

এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি শরণখোলায় অভিযান চালিয়ে ১৯টি হরিণের চামড়াসহ দুই শিকারিকে আটক করা হয়

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




১৮টি হরিণের চামড়াসহ দুই পাচারকারী আটক

বাগেরহাট থেকে ১৮টি হরিণের চামড়াসহ পাচারকারী সিন্ডিকেটের দুই সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাগেরহাট সদর উপজেলার বারাকপুর বাজারে কাশেম প্লাজা মার্কেটে অভিযান চালিয়ে তাঁদের আটক করা হয়। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোনসেট এবং দুই হাজার টাকা জব্দ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে খুলনা র‌্যাব-৬-এর পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

আটক দুজন হলেন বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলার বহরবুনিয়া গ্রামের রফিজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুল হাকিম (৫০) এবং শরণখোলা উপজেলার সোনাতলা গ্রামের আলী মিয়া হাওলাদারের ছেলে কামরুল ইসলাম (৩৫)। তাঁরা হরিণের মাংস এবং চামড়া পাচারকারী সিন্ডিকেটের সদস্য বলে র‌্যাব জানায়।

খুলনা র‌্যাব-৬-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মো. বজলুর রশীদ জানান, বারাকপুর বাজারে হরিণের চামড়া ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে—গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে র‌্যাব অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা ওই দুজনকে আটক করেন এবং তাঁদের কাছে থাকা দুটি বড় প্লাস্টিকের ব্যাগে রক্ষিত হরিণের ১৮টি চামড়া উদ্ধার করেন।

এএসপি মো. বজলুর রশীদ আরো জানান, আটক দুজন র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন যে তাঁরা সুন্দরবন থেকে হরিণের চামড়া এবং মাংস সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করে থাকেন। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হরিণের চামড়াসহ আটক দুই পাচারকারীকে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি বাগেরহাট জেলা পুলিশ শরণখোলায়

অভিযান চালিয়ে ১৯টি হরিণের চামড়াসহ দুই শিকারিকে আটক করে।

প্রসঙ্গত, করোনা মহামারির এই সময়ে সুন্দরবনে হরিণ শিকার বেড়ে গেছে। শিকারিচক্র ফাঁদ পেতে এবং বিষটোপ দিয়ে হরিণ শিকার করার পর বনের মধ্যে জবাই করে মাংস লোকালয়ে এনে বিক্রি করছে। আর হরিণের চামড়া সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার করে আসছে।

 



সাতদিনের সেরা