kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

নৌপথের ঘাটে ঘাটে গাড়িজট, দুর্ভোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নৌপথের ঘাটে ঘাটে গাড়িজট, দুর্ভোগ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথের দুই প্রান্তে অতিরিক্ত গাড়ির চাপে যানজট আরো দীর্ঘ হয়েছে। গতকাল শুক্রবারও পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া ঘাটে কমপক্ষে দেড় সহস্রাধিক যানবাহন আটকা পড়েছে। স্রোতের কারণে পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা লাগার শঙ্কায় দুর্ঘটনা এড়াতে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি সার্ভিস বন্ধের প্রভাবে অতিরিক্ত গাড়ির চাপ বেড়েছে ওই দুই ঘাটে।

এদিকে ফেরি সংকটের কারণে চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌপথে নরসিংহপুর ঘাটে দীর্ঘ যানজট দেখা দিয়েছে। অনেক পণ্যবাহী গাড়ি তিন-চার দিন অপেক্ষায় থেকেও ফেরিতে উঠতে পারছে না। গতকাল পারাপারের জন্য চার শতাধিক পণ্যবাহী গাড়ি ওই ঘাটে আটকা পড়ে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। এ ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) : গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটের যানজট পরিস্থিতির তেমন উন্নতি হয়নি। গতকাল দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে বাস, ট্রাকসহ পাঁচ শতাধিক যানবাহন। এর মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যানের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এতে ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারিজ পর্যন্ত চার কিলোমিটার রাস্তায় দীর্ঘ যানজট দেখা দেয়।

দৌলতদিয়া ঘাটে কর্মরত বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডাব্লিউটিসি) সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) মো. শিহাব উদ্দিন জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে বর্তমান ফেরির কোনো সংকট নেই। কিন্তু নৌ চ্যানেলের বিভিন্ন পয়েন্টে নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। প্রয়োজনীয় পানির গভীরতা না থাকায় রো রো (বড়) ফেরিগুলো স্বাভাবিক গতিতে চলতে পারছে না। পাশাপাশি বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি সার্ভিস বন্ধের প্রভাবে অতিরিক্ত গাড়ির চাপ পড়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে। ফলে উভয় ঘাটে যানজট লেগেই থাকছে। নৌপথে বহরে রয়েছে ছোট-বড় ২০টি ফেরি। সব ফেরি সার্বক্ষণিক সচল রেখে ঘাটে আটকে থাকা গাড়িগুলো দ্রুত পারাপারের চেষ্টা চালাচ্ছে বিআইডাব্লিউটিসি।

মানিকগঞ্জ (আঞ্চলিক) : পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথের পাটুরিয়া প্রান্তে পন্টুন সমস্যার কারণে ৪ নম্বর ঘাটটি আগে থেকেই বন্ধ রয়েছে। ঘাটের কাছে নদীতে নাব্যতা সংকটের কারণে ড্রেজিং করে বালু সরানো হচ্ছে। এ কারণে ৫ নম্বর ও ৩ নম্বর ঘাটের একটি করে পকেট ফেরি ভেড়ানো

যাচ্ছে না। শুধু ৩ ও ৫ নম্বর ঘাটের দুটি পকেট সচল রয়েছে।  ফলে ফেরিতে যানবাহন পারাপার ব্যাহত হচ্ছে।

গতকাল সকাল থেকেই শত শত যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে। এ সময় পণ্যবাহী ট্রাকসহ আট শতাধিক যানবাহন পারের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রচণ্ড রোদ আর গরমে ঘণ্টা পর ঘণ্টা পারের অপেক্ষায় থেকে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও চালকরা।

ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, পাটুরিয়া ৪ নম্বর ফেরিঘাটের পন্টুনের শিট ভেঙে যাওয়ার কারণে তা মেরামতের কাজ চলছে। এ কারণে ঘাটটি বন্ধ রাখা হয়েছে। এদিকে কয়েক সপ্তাহ ধরে ঘাটের কাছে নদীতে নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। এ সংকট নিরসনে তিনটি ড্রেজার দিয়ে বালু সরানোর কাজ চলছে। এ জন্য বাধ্য হয়ে ৩ ও ৫ নম্বর ঘাটের একটি করে পকেট বন্ধ রাখা হয়েছে। এতে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ফেরির ট্রিপসংখ্যা অর্ধেকে নেমে এসেছে। ফলে অপেক্ষমাণ গাড়ির সারি দীর্ঘ হচ্ছে।

বিআইডাব্লিউটিসি আরিচা কার্যালয়ের ডিজিএম মো. জিল্লুর রহমান বলেন, পাটুরিয়া ফেরিঘাটের কাছে কয়েক দিন ধরে নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। এ কারণে  ড্রেজিং করে বালু সরানো হচ্ছে। এতে দুই ঘাটের দুটি পকেটে ফেরি ভেড়ানো যাচ্ছে না।

শরীয়তপুর : ফেরি সংকটের কারণে চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌপথে নরসিংহপুর ঘাটে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল পারাপারের জন্য চার শতাধিক পণ্যবাহী গাড়ি ওই ঘাটে আটকা পড়েছে। নৌপথটিতে যানবাহন পারাপারের জন্য সাতটি ফেরি চলাচল করত। এর মধ্যে একটি বিকল হয়ে পড়েছে। আরেকটি নেওয়া হয়েছে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে। দুটি ফেরি না থাকা এবং নদীতে স্রোত থাকায় ধীরগতিতে চলছে ফেরি। এ কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে বিআইডাব্লিউটিসি দাবি করেছে।

গতকাল নরসিংহপুর গিয়ে দেখা যায়, পাঁচটি পুরাতন ছোট ফেরি দিয়ে গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে। চাঁদপুর-শরীয়তপুর সড়কের নরসিংহপুর বাজার থেকে ফেরিঘাট পর্যন্ত এক কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আর টার্মিনালে তিন শতাধিক গাড়ি আটকা পড়েছে। টার্মিনালে আটকে পড়া গাড়ির চালকরা চার থেকে পাঁচ দিন ধরে পারাপারের অপেক্ষায় আছেন।

বিআইডাব্লিউটিসি নরসিংহপুর ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুল মোমেন বলেন, আশা করছি দু-এক দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান হবে।

 



সাতদিনের সেরা