kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মার্কেলের দল ডুবেছে দুর্বল প্রার্থীর জন্য!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মার্কেলের দল ডুবেছে দুর্বল প্রার্থীর জন্য!

জার্মানির পার্লামেন্ট নির্বাচনে হেরে গেছে চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের দল ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)। সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়ে সরকার গঠন করার ঘোষণা দিয়েছে মধ্য বামপন্থী দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এসপিডি)। যদিও সরকার গঠন করতে হলে তাদের একাধিক দলের সঙ্গে জোট বাঁধতে হবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, জনপ্রিয়তা থাকার পরও কয়েকটি কারণে মার্কেলের দলের নজিরবিহীন ভরাডুবি হয়েছে। সবচেয়ে বড় কারণ সিডিইউ থেকে মনোনীত চ্যান্সেলর প্রার্থী আরমিন লাশেট (৬০)। মার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার জন্য ব্যক্তি কিংবা রাজনীতিবিদ হিসেবে যে ‘ভারিক্কি’ থাকা দরকার, তা লাশেটের মধ্যে নেই। নির্বাচনের আগে কোনো টেলিভিশন বিতর্কেই তিনি নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি। অন্যদিকে নানা কারণে ভোটারদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে ছিলেন এসপিডি থেকে মনোনীত প্রার্থী ওলাফ শলৎস। প্রথমত, তিনি মার্কেল সরকারের অধীনে ২০১৮ সাল থেকে ডেপুটি চ্যান্সেলর ও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ৬৩ বছর বয়সী এই নেতা একসময় হামবুর্গের মেয়রও ছিলেন। দ্বিতীয়ত, নির্বাচনের আগে টেলিভিশনে যতগুলো বিতর্ক হয়েছে, সবগুলোতেই তিনি অন্যদের তুলনায় এগিয়ে ছিলেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মার্কেল সরকারের ‘প্রতিহিংসাও’ শলেসর জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে। একটি তদন্তের অংশ হিসেবে সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। এ ঘটনাকে মূলত রাজনৈতিক প্রতিহিংসা হিসেবে মূল্যায়ন করেন ভোটাররা। এ কারণে শলৎসকে বেকায়দায় ফেলার অভিযান উল্টো তাঁর জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দেয়।

জার্মানির রাজনীতিতে রক্ষণশীল সিডিইউয়ের যাত্রা শুরু হয় ১৯৫০ সালে। এই ৭২ বছরের ইতহাসে দলটি এর আগের কোনো নির্বাচনে ৩০ শতাংশের কম ভোট পায়নি। এ ছাড়া যাত্রা শুরুর পর মাত্র ২০ বছর ক্ষমতার বাইরে ছিল তারা।

জরিপে দেখা গেছে, কয়েক মাস আগেও জনমত জরিপগুলোতে মার্কেলের দল এগিয়ে ছিল। কিন্তু ভোটের কয়েক দিন আগে জরিপের ফল পাল্টে যেতে থাকে। জার্মান ভোটারদের একটা ‘অভ্যাস’ হলো, তাঁরা একেবারে চূড়ান্ত পর্যায়ে গিয়ে পছন্দের প্রার্থী এবং দল ঠিক করেন।

জনপ্রিয়তায় কে এগিয়ে আছে, তা জানতে মাসখানেক আগে একটি জরিপ চালায় ‘ফ্রাংকফুর্টার অ্যালজেমেইন জেইতাং’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান। জরিপে অংশ নেওয়া ৪০ শতাংশ ভোটার জানান, তাঁরা কোন দল কিংবা প্রার্থী ভোট দেবেন, সেই সিদ্ধান্ত এখনো নেননি।

প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কোন বিষয়টি সবচেয়ে বেশি বিবেচনায় থাকে—এমন প্রশ্নের জবাবে বেশির ভাগ ভোটারই জলবায়ু পরিবর্তনের কথা বলেছেন। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল করোনা মহামারি। ফলে সাম্প্রতিক বন্যায় প্রাণহানির ঘটনা ও করোনা মহামারি মার্কেলের দলের জনপ্রিয়তা কমিয়ে দিয়েছে বলে মনে করেন অনেক বিশ্লেষক। সূত্র : ডয়চে ভেলে, বিবিসি, ইকোনমিস্ট।



সাতদিনের সেরা