kalerkantho

বুধবার । ৪ কার্তিক ১৪২৮। ২০ অক্টোবর ২০২১। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

৫৪ নাগরিকের বিবৃতি

নির্বাচন কমিশন গঠনে দ্রুত আইন প্রণয়নের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নির্বাচন কমিশন গঠনে দ্রুত আইন প্রণয়নের দাবি

সংবিধান অনুসারে দ্রুত আইন প্রণয়ন করে সেই আইনের বিধানাবলি সাপেক্ষে নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবি জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট ৫৪ জন নাগরিক। একই সঙ্গে তাঁরা নির্বাচনের সময়ে প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী যাতে নিরপেক্ষতার ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করতে পারে সে ব্যাপারে সংস্কার পদক্ষেপ নেওয়ার জন্যও সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে তাঁরা এই দাবি ও অনুরোধ জানান।

বিবৃতিতে সংবিধানের ১১৮(১) অনুচ্ছেদ উল্লেখ করে বলা হয়, এতে সুস্পষ্টভাবে ‘আইনের বিধানাবলি সাপেক্ষে’ নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ প্রদানের নির্দেশনা থাকলেও গত ৫০ বছরে কোনো সরকারই এমন একটি আইন প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বর্তমান নুরুল হুদা কমিশনের মেয়াদ ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে শেষ হবে। তাই নির্বাচন কমিশনের পুনর্গঠনের উদ্যোগ এখনই শুরু করতে হবে; যার প্রাথমিক পদক্ষেপ হবে সাংবিধানিক নির্দেশনা অনুযায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং অনধিক চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের লক্ষ্যে একটি আইন প্রণয়ন করা। এ ব্যাপারে অবিলম্বে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য আমরা সরকারের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে অনুরোধ জানাচ্ছি, নির্বাচনকালে প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী যাতে নিরপেক্ষতার ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করতে পারে সে ব্যাপারে সংস্কার পদক্ষেপের কথা এখন থেকেই ভাবতে।

বিবৃতিদাতাদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজউদ্দিন খান, অবসরপ্রাপ্ত মন্ত্রিপরিষদসচিব ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খান, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে. চৌধূরী, সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি আব্দুল মতিন, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ড. এম সাখাওয়াত হোসেন, মানবাধিকারকর্মী ড. হামিদা হোসেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহ উদ্দিন আহমেদ, সাবেক মন্ত্রিপরিষদসচিব আলী ইমাম মজুমদার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আবু আলম শহীদ খান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব মহিউদ্দিন আহমদ, অর্থনীতিবিদ ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, মানবাধিকারকর্মী খুশী কবির, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক তোফায়েল আহমেদ, সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক পারভীন হাসান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট ড. শাহদীন মালিক, অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না ও ব্যারিস্টার সারা হোসেন, অধ্যাপক রেহনুমা আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরিন, মহিলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সালমা আলী, আলোকচিত্রশিল্পী ড. শহিদুল আলম, অর্থনীতিবিদ ড. আহসান মনসুর, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সি আর আবরার প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা