kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সবিশেষ

সবচেয়ে পুরনো উটের ভাস্কর্য

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সবচেয়ে পুরনো উটের ভাস্কর্য

বছর তিনেক আগে সৌদি আরবে আবিষ্কৃত উটের ভাস্কর্য সবচেয়ে প্রাচীন বলে নতুন এক গবেষণায় উঠে এসেছে। পাথরে খোদাই করা এসব ভাস্কর্যের হদিস মেলে ২০১৮ সালে। সে সময় প্রত্নতাত্ত্বিকরা ধারণা করেন, এসব ভাস্কর্য দুই হাজার বছরের পুরনো। কিন্তু নতুন গবেষণা বলছে, এসব ভাস্কর্য সাত থেকে আট হাজার বছর আগের। এই অঞ্চলে এ ধরনের ভাস্কর্যের তেমন একটা দেখাও মেলে না।

নতুন গবেষণাপত্রটি ‘আর্কিওলজিক্যাল সায়েন্স’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ভাস্কর্যের ক্ষয়ের ধরন, হাড়ের প্রকৃতি প্রভৃতি বিষয় বিশ্লেষণ করে নতুন সময়কাল পাওয়া গেছে। এসব ভাস্কর্য ইংল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলের উইটশায়ারে অবস্থিত স্টোনহেঞ্জের সময়কালের (পাঁচ হাজার বছর আগের) চেয়েও পুরনো। এমনকি মিসরের পিরামিড (সাড়ে চার হাজার বছরের পুরনো) নির্মাণকালের প্রায় দ্বিগুণ সময় আগের। তবে গবেষকরা বলেছেন, সে সময় কেন উটের ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছিল, তা এখনো অজানা। সম্ভবত উপজাতিদের মিলনস্থল হয়ে থাকতে পারে।

হাজার হাজার বছর আগে এ ধরনের ভাস্কর্য নির্মাণ বেশ কষ্টসাধ্য ছিল বলে মনে করছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। এসব ভাস্কর্য যেহেতু মাটি থেকে অনেক উঁচুতে নির্মাণ করা হয়, সেহেতু কাঠ-বাঁশ বা মই জাতীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হয় নির্মাতাদের।

জানা গেছে, সৌদি আরবের উত্তরে আল জওফ প্রদেশে ২০১৬-২০১৭ সালে গবেষণা শুরু করেন সৌদি আরব ও ফ্রান্সের একদল গবেষক। ২০১৮ সালে উটের ভাস্কর্য আবিষ্কার করে তাঁরা জানান, পাথরের খোদাইগুলোতে বিশেষ কারিগরি দক্ষতা রয়েছে। অনেক বছর ধরে এ অঞ্চলে যোগাযোগের জন্য উট ব্যবহার করা হচ্ছে। এসব ভাস্কর্যে আরবদের নিজস্ব ঐতিহ্যের সঙ্গে নাবাতেয়ান ও পার্থিয়ান প্রভাব থাকতে পারে। সূত্র : বিবিসি।



সাতদিনের সেরা