kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

লঞ্চ থেকে মেঘনায় দুই শিশুকে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ

উদ্ধারের পর মামলার প্রস্তুতি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




লঞ্চ থেকে মেঘনায় দুই শিশুকে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জের মেঘনা নদী থেকে দুই শিশুকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। ভাড়া না থাকায় চলন্ত লঞ্চ থেকে তাদের ফেলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। গত শনিবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

যথাক্রমে ১২ ও ১৩ বছরের শিশু দুটির অভিযোগ, পানি বেচতে রাজধানীর সদরঘাট থেকে ‘ইমাম হাসান-৫’ নামের একটি লঞ্চে উঠেছিল তারা। ভাড়া না থাকায় তাদের মেঘনা নদীতে ফেলে দেন লঞ্চের স্টাফরা। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে নৌ পুলিশ।

শনিবার রাত ১০টার দিকে গজারিয়া থানার ফেসবুক পেজে শিশু দুটির সঙ্গে ওসি রইছ উদ্দিনের কথোপকথনের একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়। মুহূর্তে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, ভাড়া দিতে না পারায় তাদের নদীতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ করছে হকার শিশু দুটি।

তবে ইমাম হাসান-৫ লঞ্চের মাস্টার দেলোয়ার হোসেন গতকাল রবিবার কালের কণ্ঠকে বলেন, তিনি লঞ্চ চালাচ্ছিলেন। তাদের কেউ ফেলেছে না পড়ে গেছে, তা বলতে পারবেন না। অন্য স্টাফরাও এ ব্যাপারে কিছু জানেন না।

গজারিয়া থানার ওসি রইছ উদ্দিন বলেন, শনিবার সকালে স্পিডবোটে করে মেঘনা নদী দিয়ে মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন। সকাল ১০টার দিকে পথে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চ টার্মিনাল থেকে আনুমানিক দুই কিলোমিটার দূরে দুই শিশুকে ভাসতে দেখেন। স্পিডবোট থামিয়ে তাদের উদ্ধার করেন। তিনি বলেন, ‘পরে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাটে নিয়ে শিশু দুটির স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে সদরঘাটগামী এমভি আল-বোরাক নামে আরেক লঞ্চে উঠিয়ে দেওয়া হয়। বিকেল ৩টার দিকে তারা নিরাপদে বাসায় পৌঁছেছে বলে আমাকে ফোন করে জানায়।’

মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুর নৌ পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মো. লুত্ফর রহমান জানান, এ ব্যাপারে নৌ পুলিশ একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে।



সাতদিনের সেরা