kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

তালেবানের ‘পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে’ পানশির

শান্তি আলোচনার প্রস্তাব নাকচ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তালেবানের ‘পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে’ পানশির

ছবি: ইন্টারনেট

টানা কয়েক দিনের তীব্র লড়াইয়ের পর পানশির উপত্যকা পুরোপুরি দখলে নেওয়ার দাবি জানিয়েছে তালেবান। সেই সঙ্গে পুরো আফগানিস্তানে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার ঘোষণাও দিয়েছে সংগঠনটি। পানশিরের বিদ্রোহীরা শান্তি আলোচনায় আগ্রহ দেখালেও তা নাকচ করে দিয়েছে তালেবান।

এদিকে আগামী সপ্তাহে তালেবান নেতৃত্বাধীন নতুন সরকারের অভিষেক অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে চীন, রাশিয়া, পাকিস্তান, তুরস্ক, কাতার, ইরানসহ বেশ কয়েকটি দেশকে। তালেবান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ গতকাল এই তথ্য জানিয়েছেন।

গত ১৫ আগস্ট পানশির উপত্যকা বাদে পুরো আফগানিস্তান তালেবানের দখলে চলে যায়। পানশিরের ন্যাশনাল রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট (এনআরএফ) জানায়, তারা তালেবানের শাসন মেনে নেবে না। সমঝোতায় পৌঁছাতে দুই পক্ষের নেতারা কয়েক দফা বৈঠক করেন। কিন্তু সমঝোতা না হওয়ায় কাবুলের ৮০ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত ওই উপত্যকায় গত সপ্তাহে অভিযান চালায় তালেবান। অন্যদিকে প্রতিরোধের ডাক দেয় এনআরএফ। কয়েক দিনের লড়াইয়ে নিহত হয় উভয়ে পক্ষের কয়েক শ যোদ্ধা।

গতকাল সোমবার তালেবান দাবি করে, পানশির পুরোপুরি তাদের নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। এনআরএফের শীর্ষস্থানীয় নেতারা পালিয়ে গেছেন। তালেবানের প্রধান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, এই বিজয়ের মধ্যে দিয়ে পুরো দেশে যুদ্ধের অবসান ঘটল।

গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্থিরচিত্র পোস্ট করে তালেবান। তাতে দেখা গেছে, পানশির প্রদেশের গভর্নরের কার্যালয়ের সামনে তালেবান যোদ্ধারা অবস্থান করছে।

তবে তালেবানের ‘পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের’ দাবি প্রত্যাখ্যান করে এনআরএফ জানিয়েছে, পানশির উপত্যকার কৌশলগত অনেক জায়গায় এখনো তাদের যোদ্ধারা অবস্থান করছে। তালেবানের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছে সশস্ত্র এই সংগঠন। এনআরএফ আরো জানিয়েছে, তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ে তাদের দুই শীর্ষ নেতা ফাহিম দস্তি ও আব্দুল ওয়াদুদ জারা নিহত হয়েছেন।

এদিকে এনআরএফ প্রধান আহমদ মাসুদ পালিয়ে তুরস্কে গেছেন বলে দাবি করে তালেবান। মতালেবানের নিউজ চ্যানেল আলেমারার সাংবাদিক তারিক গজনিওয়াল বলেন, মাসুদ পালিয়ে তুরস্কে চলে গেছেন। পানশিরে এখন ইন্টারনেট বন্ধ। মাসুদের পক্ষে তাহলে কীভাবে অনলাইনে বক্তব্য পোস্ট করা সম্ভব?

পানশির নিয়ে আলোচনায় বসতে উভয় পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ধর্মীয় আলেমরা। এই আহ্বানের বিষয়ে এনআরএফ প্রধান আহমদ মাসুদ বলেছেন, ‘নীতিগতভাবে চলমান সমস্যা সমাধানে এবং অবিলম্বে লড়াই শেষ করতে আমরা আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি। পানশিরে তালেবান সামরিক তৎপরতা বন্ধ করবে—এই শর্তে আমরা স্থায়ী শান্তিচুক্তি করতেও প্রস্তুত।’

তালেবান অবশ্য শান্তি আলোচনার প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে। গতকাল কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তালেবান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, ‘আমরা যখন আলোচনার চেষ্টা করেছিলাম, এনআরএফ তখন নেতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছিল। এরপর আমরা সেখানে সামরিক বাহিনী পাঠাই। বর্তমানে উপত্যকাটি পুরোপুরি পরিষ্কার করা হয়েছে।’

পানশিরে তালেবানের হামলার নিন্দা জানিয়েছে ইরান। গতকাল দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খতিবজাদেহ বলেন, পানশির থেকে যেসব খবর আসছে, তা সত্যিই উদ্বেগজনক। সেখানে হামলার ঘটনা নিন্দনীয়।

তালেবান যোদ্ধারা কাবুল দখলের পর এই প্রথম তাদের সমালোচনা করল ইরান। তালেবানকে তাদের প্রথম শাসনামলেও (১৯৯৬-২০০১) স্বীকৃতি দেয়নি ইরান। সূত্র : এএফপি।

 



সাতদিনের সেরা