kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

আজ বিশ্বকবির প্রয়াণ দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আজ বিশ্বকবির প্রয়াণ দিবস

বাঙালির জীবনে শোকাবহ মাস হয়ে উঠেছে আগস্ট। এ মাসে কেবল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকেই জাতি হারায়নি, হারিয়েছে বাঙালির অনেক ক্ষণজন্মা পুরুষকে। এ মাসেই মহাপ্রয়াণ ঘটেছে বাঙালির সাহিত্য-সংস্কৃতির সবচেয়ে উজ্জ্বলতম নক্ষত্র কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের।

বৈশ্বিক মহামারি কভিড-১৯ সংক্রমণ বিস্তারের এই দুঃসময়ে জাতি আজ স্মরণ করবে বাঙালির সবচেয়ে আপনজন এই বিশ্বকবিকে। আজ শুক্রবার, ২২শে শ্রাবণ কবিগুরুর ৮০তম প্রয়াণ দিবস। ১৯৪১ সালের ৬ আগস্ট, বাংলা ১৩৪৮ বঙ্গাব্দের ২২শে শ্রাবণ কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে ৮০ বছর বয়সে পরলোকগমন করেন রবীন্দ্রনাথ।

বাঙালি সুখে-দুঃখে বারবার ফিরে যায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাছেই। বাঙালির এমন কোনো অনুভূতি নেই, যার প্রকাশ ঘটেনি ক্ষণজন্মা এই বাঙালির সৃজনকর্মে। বিশ্বজুড়ে যখন কভিড মহামারি চলছে, তখনো প্রাসঙ্গিক রবীন্দ্রনাথ। বাঙালি শ্রোতারা বারবার ফিরে যায় রবীন্দ্রসংগীতের অমিয় সুরের ধারায়, যেখানে ধ্বনিত হয় প্রশান্তির বারিধারা। ‘আছে দুঃখ, আছে মৃত্যু, বিরহদহন লাগে।/তবুও শান্তি, তবু আনন্দ, তবু অনন্ত জাগে/ তবু প্রাণ নিত্যধারা, হাসে সূর্য চন্দ্র তারা...’ এ রকম অগণিত গান থেকে মানুষ পায় দুঃসময় মোকাবেলার প্রেরণা।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এক জীবনে সাহিত্যের এমন বিচিত্র এক জগৎ রচনা করেছেন, যা বাংলা ভাষাকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি বিশ্বসাহিত্যের আসরে করেছে মহিমান্বিত। ১৯১৩ সালে ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যগ্রন্থের জন্য তাঁর নোবেলপ্রাপ্তি বাংলা সাহিত্যকে বিরল গৌরব এনে দেয়। শুধু সৃজনশীল সাহিত্য রচনায় নয়; সমাজ, রাষ্ট্র, শিক্ষা, অর্থনীতি নিয়ে স্বকীয় ভাবনাও তাঁকে অনন্য মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করেছে। বিপুল তাঁর রচনা, বিচিত্র তাঁর বিষয়। তিনি যেখানে হাত দিয়েছেন, সেখানেই ফলেছে রাশি রাশি সোনা। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ, সংগীত, ভ্রমণকাহিনি, চিঠিপত্র, সমালোচনা, চিত্রকলা সমৃদ্ধ হয়েছে তাঁর অজস্র অনন্য সৃষ্টিতে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সেই অনন্য ব্যক্তিত্ব, যাঁর লেখা গান বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের জাতীয় সংগীত হিসেবে মনোনীত হয়েছে। করোনাকালীন পরিস্থিতির কারণে ২২শে শ্রাবণ উপলক্ষে এবার তেমন কোনো আনুষ্ঠানিক আয়োজন নেই। তবে বাঙালি মননের চিরনবীন এই সারথির প্রয়াণ দিবসে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে। বাংলা একাডেমির উদ্যোগে আজ বিকেল ৪টায় অনলাইনে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ‘শ্রাবণের আমন্ত্রণে’ শীর্ষক স্মরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ছায়ানট। রাত ৯টায় অনুষ্ঠানটি ছায়ানটের ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

 

 



সাতদিনের সেরা