kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ

উপকূলীয় এলাকায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিপাত থাকবে

সমুদ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উপকূলীয় এলাকায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিপাত থাকবে

উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তত্সংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় সুস্পষ্ট লঘুচাপে রূপ নিয়েছে। এর প্রভাবে সুন্দরবনসহ বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সমুদ্রবন্দরসংলগ্ন এলাকায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচলের পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়াবিদ এ কে নাজমুল হক গত রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘লঘুচাপটি মূলত ভারতের ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গের দিকে রয়েছে। এটি আরো উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ভারতের স্থলভাগে গিয়ে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়বে। তবে এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এরই মধ্যে সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় ঝোড়ো হাওয়া শুরু হয়েছে। তা আরো বাড়তে পারে। আজ শনিবারও এই ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিপাত থাকবে। এরপর ঝোড়ো হাওয়া চলে গেলেও মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে বৃষ্টিপাত থাকবে।’

গতকাল সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু এলাকায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি ও বজ সহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা এক থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে।

আবহাওয়ার সংক্ষিপ্তাসারে বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তত্সংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ ভারতের রাজস্থান, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ ও বিহার এবং লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে উত্তর-পূর্বদিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের ওপর সক্রিয়, দেশের অন্যত্র মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে প্রবল অবস্থায় বিরাজ করছে। 

শ্রাবণ মাসের শুরুতেই দেশের বেশির ভাগ জায়গায় বৃষ্টিপাত হচ্ছে। গতকাল সকাল ৬টা পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে টেকনাফে, ৯১ মিলিমিটার। রাজধানীতেও হালকা বৃষ্টি হয়েছে। আগামী দু-এক দিনের মধ্যে সারা দেশেই বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে বলে জানা গেছে।

মোংলা বন্দরসংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় লঘুচাপের প্রভাবে গতকাল ভোর থেকে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিরাজ করছে। থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। মোংলা বন্দরের পশুর নদীসহ সুন্দরবনের নদী-খালের পানি স্বাভাবিকের তুলনায় ১৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছে বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ড।

[প্রতিবেদনটিতে তথ্যের জোগান দিয়েছেন মোংলা প্রতিনিধি]



সাতদিনের সেরা