kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

পিরোজপুরে মাদক আইসসহ গ্রেপ্তার আ. লীগ নেতা

পিরোজপুর প্রতিনিধি   

১৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পিরোজপুরে মাদক আইসসহ গ্রেপ্তার আ. লীগ নেতা

পিরোজপুরে মো. মাসুম খান রাজ নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁর কাছে ভয়ংকর মাদক ক্রিস্টাল মেথ বা আইস পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছে র‌্যাব। গত শনিবার রাতে সদর উপজেলার টোনা ইউনিয়নের ওধনকাঠী গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল রবিবার দুপুরে তাঁকে সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

মাসুম খান রাজ ওরফে কাউয়া রাজ (২৭) টোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি ওই ইউনিয়নের ওধনকাঠী গ্রামের মৃত মতিউর রহমান খানের ছেলে। তিনি মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। 

সম্প্রতি আলোচনায় আসা ক্রিস্টাল মেথ বা আইস ইয়াবার চেয়েও কয়েক গুণ বেশি ক্ষতিকর মাদক। 

র‌্যাব-৮ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, শনিবার রাত পৌনে ৯টার দিকে ওধনকাঠী গ্রামের মাসুম খানের বাড়ির সামনের ইটের রাস্তার ওপর বসে মাদকজাতীয় দ্রব্য বেচাকেনা হচ্ছে—এমন খবর পেয়ে র‌্যাব-৮-এর একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্য মাদক কারবারিরা পালিয়ে গেলেও মাসুমকে আটক করা সম্ভব হয়। তাঁর দেহ তল্লাশি করে ১০০ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ বা আইস উদ্ধার করে র‌্যাব। পরে র‌্যাব-৮-এর ডিএডি মোহাম্মদ আল মামুন শিকদার বাদী হয়ে পিরোজপুর সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন।

পিরোজপুর সদর থানার ওসি আ জ ম মাসুদুজ্জামান জানান, মাসুম খানকে মাদকসহ আটক করে থানায় হস্তান্তর করেছে। তাঁকে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম শিকদার মন্টু বলেন, ‘মাসুম খান টোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক। তবে ওই কমিটিকে আমাদের বর্তমান উপজেলা কমিটি এখনো অনুমোদন দেয়নি।’

একটি সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার বিকেলে একটি কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ওই ‘ক্রিস্টাল মেথ আইস’ নামের মাদকের চালানটি পিরোজপুরে আসে। মাসুম খানের এক জুনিয়র সহযোগী কুরিয়ার সার্ভিস থেকে চালানটি ছাড়িয়ে সন্ধ্যায় মাসুমের কাছে পৌঁছে দেয়। পিরোজপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একাধিক সূত্র জানায়, মাসুম খান রাজ একজন তালিকাভুক্ত ও চিহ্নিত মাদক কারবারি। তাঁর স্ত্রী সানজানা মারিয়া এবং এক ভাই মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত। এর আগে মাদকসহ মাসুমের স্ত্রী এবং এক ভাইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।



সাতদিনের সেরা