kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

শাল্লায় হামলা লুটপাট

মূল হোতা স্বাধীন মেম্বারের জামিন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

২২ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মূল হোতা স্বাধীন মেম্বারের জামিন

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে হেফাজতে ইসলামের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের সমর্থকদের সংঘবদ্ধ হামলা, লুটপাট ও ভাঙচুরের ঘটনার প্রধান আসামি ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম স্বাধীনকে জামিন দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ ওয়াহিদুজ্জামান শিকদার এই জামিন দেন। আলোচিত এই সাম্প্রদায়িক হামলার প্রধান আসামির জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট শামসুন নাহার বেগম শাহানা। তবে ওই মামলায় স্বাধীনের বিপক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না।

গত ১৬ মার্চ শাল্লা উপজেলার হিন্দু অধ্যুষিত নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক যুবক হেফাজত নেতা মামুনুল হকের সমালোচনা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। এর জের ধরে তাঁর সমর্থকরা পরদিন ওই গ্রামে হামলা ও লুটপাট চালায়। তবে ঝুমন দাসের পরিবার তাঁর আইডি হ্যাক করে দুষ্কৃতকারীরা স্ট্যাটাস দিয়েছিল বলে অভিযোগ করে আসছে।

আলোচিত এই হামলার প্রধান আসামি ছিলেন শহিদুল ইসলাম স্বাধীন। স্বাধীনের নির্দেশেই তাঁর গ্রাম চণ্ডীপুরবাসীসহ প্রতিবেশী ছয়টি গ্রামের লোকজন ওই হামলা ও লুটপাটে অংশ নেয়। তারা গ্রামে প্রবেশ করে ঝুমন দাস আপনের বসতঘরসহ ৮৫টি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করে।

এ ঘটনায় গত ১৮ মার্চ পৃথক দুটি মামলা হয়। গ্রামবাসীর পক্ষে ইউপি চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল ৫০ জনের নামোল্লেখসহ এক হাজার ৫০০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। একই দিন শাল্লা থানার এসআই আব্দুল করিম ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম স্বাধীনকে প্রধান আসামি করে আরেকটি মামলা করেন। এ ছাড়া ঝুমন দাস আপনের মা নিভা রানী দাস শহিদুল ইসলাম স্বাধীনকে প্রধান আসামি করে ৭০ জনের নামোল্লেখ করে আদালতে আরেকটি পৃথক মামলা করেন। তিনটি মামলাতেই প্রধান আসামি ছিলেন স্বাধীন। গত ২০ মার্চ মৌলভীবাজার থেকে পিবিআই স্বাধীনকে গ্রেপ্তার করে।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর শামসুন্নাহার বেগম শাহানা বলেন, বাদীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আফাব উদ্দিন, অ্যাডভোকেট রবিউল লেইস রোকেসসহ আরো অনেকে। তিনি বলেন, ৬৪ ধারার জবানবন্দিতে স্বাধীনের যুক্ততার স্বীকারোক্তি ছিল না। হামলার ভিডিওতেও তাঁর ছবি ছিল না, যে কারণে জজ তাঁকে জামিন দিয়েছেন। এর আগে নিম্ন আদালতে আরো ৪৮ জনেরও জামিন হয়েছে বলে তিনি জানান।

 



সাতদিনের সেরা