kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

লক্ষ্মীপুর-কুমিল্লায় এমপি ‘নিশ্চিত’আ. লীগের

লক্ষ্মীপুর-২ আসনে ভোট আজ কুমিল্লা-৫-এ জাপার প্রার্থী সরে দাঁড়ালেন

লক্ষ্মীপুর ও বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২১ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে




লক্ষ্মীপুর-কুমিল্লায় এমপি ‘নিশ্চিত’আ. লীগের

লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনের উপনির্বাচন আজ সোমবার (২১ জুন)। প্রাণহীন এই নির্বাচনে সংসদ সদস্য (এমপি) পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন ও প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী শেখ মো. ফায়িজ উল্যাহ শিপন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে নিশ্চিত জয়ের পথে আছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী।

এদিকে কুমিল্লা-৫ আসনের উপনির্বাচনে বিনা ভোটে জয়ী হতে চলেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবুল হাসেম খান। তাঁর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. জসিম উদ্দিন প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন। এ আসনে ভোট হবে আগামী ২৮ জুন।

উল্লেখ্য, উপনির্বাচনে কোনো আসনেই প্রার্থী দেয়নি বিএনপি।

লক্ষ্মীপুর-২ আসন : এ আসনে ভোট হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। বিএনপির প্রার্থী না থাকায়, জাতীয় পার্টির প্রার্থীর নেতাকর্মী-সমর্থকদের সমন্বয়হীনতা এবং বৃষ্টির বাগড়ায় নির্বাচনের ব্যাপারে জনগণের মধ্যে তেমন আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। নিষ্প্রাণ মাঠে একচেটিয়া শক্তির মহড়া দিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। তাঁরা আশা করছেন, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী দলের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়নের বিজয় নিশ্চিত।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, এ আসনে লক্ষ্মীপুর সদরের আটটি ইউনিয়ন, রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা রয়েছে। ১৩৬টি ভোটকেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। ১৯ জন ম্যাজিস্ট্রেটের অধীনে পুলিশের পাশাপাশি ১০ প্লাটুন বিজিবি সার্বক্ষণিক টহলে থাকবে। র‌্যাব-১১ নির্বাচনী এলাকায় মোতায়েন থাকবে। এ আসনে চার লাখ দুই হাজার ৯৬৩ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে দুই লাখ চার হাজার ৬৬৪ জন পুরুষ এবং এক লাখ ৯৮ হাজার ২৯৯ জন নারী ভোটার।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগ, এর সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা নির্বাচনী এলাকায় ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও কেন্দ্রভিত্তিক সভা, মতবিনিময়সভা ও উঠান বৈঠক করেন। ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করে রাত-দিন প্রচার চালিয়েছেন তাঁরা। জাতীয় পার্টির প্রার্থী নামমাত্র রায়পুর পৌরসভা ও সোনাপুরসহ কিছু এলাকায় প্রচার চালিয়েছেন। দলীয় নেতাকর্মীরা তাঁর সঙ্গে নেই। জেলা, উপজেলা ও বিভিন্ন শাখার দায়িত্বশীল নেতারা দলের প্রার্থীকে ‘কলাগাছ’ আখ্যায়িত করে ফেসবুকেও স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী শেখ ফায়িজ উল্যাহ শিপন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি নিরপেক্ষ ভোট চাই। জনগণ বিপুল ভোটের মাধ্যমে তাঁদের রায় দেবেন।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘আমার নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। বিষয়টি আমি লিখিতভাবে প্রশাসনকে জানিয়েছি।’

আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, ‘সরকারের টানা উন্নয়ন ও সুফলভোগী হওয়ায় ভোটারদের মধ্যে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। নৌকার পক্ষে গণজোয়ার উঠেছে। জনগণ অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করার জন্য নৌকায় ভোট দেবে। বিপুল ভোটে নৌকা বিজয়ী হবে।’

কুমিল্লা-৫ আসন : আগামী ২৪ জুন মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিন ধার্য থাকলেও চার দিন আগেই গতকাল রবিবার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. জসিম উদ্দিন। ফলে এ আসন থেকে বিনা ভোটে সংসদ সদস্য হতে চলেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাসেম খান।

কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেছেন, ‘জাতীয় পার্টির প্রার্থী জসিম উদ্দিনের আবেদনটি আমরা পেয়েছি। ২৪ জুন বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।’

জসিম উদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এখন কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। ২৪ তারিখ আনুষ্ঠানিকভাবে সব বলব।’