kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

সরকারের পদস্থ ব্যক্তিদের আত্মীয় পরিচয়ে প্রতারণা

এনএসআই ও র‌্যাবের যৌথ অভিযানে কাফরুল থেকে তিন প্রতারক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সরকারের পদস্থ ব্যক্তিদের আত্মীয় পরিচয়ে প্রতারণা

প্রতারকচক্রের হোতা শেখ হাবিবুর রহমান, তাঁর ছেলে শেখ ইমরান ও ছেলের স্ত্রী শারমিন আক্তার

জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) ও র‌্যাব যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে রাজধানীর কাফরুল থানাধীন এলাকা থেকে বহুল আলোচিত প্রতারকচক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার হওয়া শেখ হাবিবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে সরকারের উচ্চপদস্থ ব্যক্তিদের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে বিভিন্নজনের সঙ্গে নানা কৌশলে প্রতারণা করে আসছিলেন। প্রতারক শেখ হাবিবের অপকর্ম গোয়েন্দা সংস্থার নজরে আসে। এরই ধারাবাহিকতায় গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৪ গত বৃহস্পতিবার বিকেলে কাফরুল থানাধীন মিরপুর-১০-এর সেনপাড়া পর্বতা এলাকায় এসএসআই গ্রুপের অফিসে অভিযান চালায়। এ সময় তারা প্রতারকচক্রের অন্যতম হোতা শেখ হাবিবুর রহমানসহ (এস কে হাবিব) তিনজনকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হয়। জানা গেছে, হাবিবুর রহমানের (৫৮) বাড়ি বরিশাল। গ্রেপ্তার অন্যজন মাদারীপুরের মো. খলিলুর রহমান (৬২) ও চাঁদপুরের মো. আবু সাইদ (৫২)।

এ সময় তাঁদের অপরাধের আলামত হিসেবে একটি ল্যাপটপ, একটি সিপিইউ, ফ্ল্যাটের মালিকানার দখল বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য সম্প্রতি নেওয়া এক লাখ টাকা, পাঁচটি মোবাইল, ১৯৮ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, প্রতারণার মাধ্যমে পেমেন্ট নেওয়া বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি চেক, ২৫টি এনআইডি কার্ডের ফটোকপি, ১০টি জন্ম সনদের ফটোকপি, একটি সিভি, তিন সেট চুক্তিনামা, তিন সেট দলিলের ফটোকপি, আড়াই শ ভিজিটিং কার্ড, দুটি ডিজিটাল সিল, পাঁচটি ছবি, আটটি পাস বই ও তিনটি ডায়েরি উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, গ্রেপ্তার হওয়া প্রতারকচক্রের সদস্যরা একই সঙ্গে রাজনৈতিক নেতাদের পরিচয় দিয়ে তাঁদের নাম ব্যবহার করে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। মূলত এই প্রতারকচক্রের হোতা শেখ হাবিবুর রহমান এসএসআই করপোরেশন নামে একটি সংস্থা খুলে চাকরি দেওয়া, জমি উদ্ধার, ফ্ল্যাট উদ্ধার—এসব কাজের কথা বলে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে প্রতারণার উদ্দেশ্যে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আত্মসাৎ করে আসছেন। শেখ হাবিব সরকারের উঁচুমহলের আত্মীয় পরিচয়ে সম্প্রতি পুলিশের বিভিন্ন থানার ওসি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে তদবির করেন। অনেকে শেখ হাবিবের দ্বারা প্রতারিত হয়েছেন। এস কে হাবিবের ছেলে শেখ ইমরানও বাবার মতো প্রতারণার কাজে জড়িত।

উল্লেখ্য, শেখ ইমরানের স্ত্রী শারমিন আক্তার এক সময় গণভবনে কর্মরত ছিলের। শেখ ইমরানের সঙ্গে বিয়ের পর তিনি স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে দেন এবং স্বামী ইমরান ও শ্বশুর শেখ হাবিবের সঙ্গে প্রতারণার কাজের সঙ্গে জড়িয়ে যান। তাঁদের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও মাদকসংক্রান্ত আইনে মামলা করাসহ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

 



সাতদিনের সেরা