kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

সবিশেষ

টিকায় ভয় নেই অন্তঃসত্ত্বাদের!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টিকায় ভয় নেই অন্তঃসত্ত্বাদের!

করোনা সংক্রমণ রুখতে টিকাদানের ওপর জোর দিচ্ছে বিভিন্ন রাষ্ট্র। কিন্তু অন্তঃসত্ত্বা নারীদের পক্ষে প্রতিষেধক নেওয়া কতটা নিরাপদ, সেটা নিয়ে ধন্দ রয়েছে সাধারণ মানুষের মনে। যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) পরামর্শ, ‘প্রতিষেধক নিরাপদ, নির্দ্বিধায় নিন।’

সিডিসির পরিচালক রোচেল ওয়ালেন্সকি বলেন, ‘প্রতিষেধক নিয়ে নানা রকম পরীক্ষা চলেছে। কোথাও কোনো চিন্তার কিছু দেখা যায়নি। সাত থেকে ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা—এমন ৩৫ হাজার নারীর ওপর পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে, প্রতিষেধক নিয়ে মা কিংবা সন্তান, কারো কোনো ক্ষতি হয়নি।’

তবে যেহেতু বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর, তাই ব্যক্তিগত চিকিৎসকেরও পরামর্শ নিতে বলছেন ওয়ালেন্সকি। তিনি জানান, প্রাথমিক ট্রায়ালে যেহেতু  অন্তঃসত্ত্বাদের ওপর পরীক্ষা করে দেখা হয়নি, তাই একটা ধন্দ তৈরি হয়েছে। তা ছাড়া বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংস্থা, মেডিক্যাল গ্রুপ বিভিন্ন রকম নির্দেশিকা দিয়েছে। কিছু ক্ষেত্রে সেসব পরস্পর বিরোধীও।

সিডিসি যেমন গোড়ার দিকে জানিয়েছিল, সন্তানসম্ভাবনা মহিলারা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তবেই প্রতিষেধক নেবেন। আমেরিকান কলেজ অব অবস্টেট্রিশিয়ানস অ্যান্ড গাইনেকোলজিস্টস জানিয়েছিল, কোনোভাবেই অন্তঃসত্ত্বা নারীদের ভ্যাকসিন নেওয়া বন্ধ করা উচিত নয়। অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছিল, প্রবল ঝুঁকি না থাকলে গর্ভবতী নারীদের যেন কভিড প্রতিষেধক দেওয়া না হয়।

কিন্তু মার্চ মাসে একাধিক দেশের গবেষণাপত্রের ফল খতিয়ে দেখে একটি রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। গত বুধবার সেই রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনসে। সিডিসির অ্যাপ থেকে নেওয়া ওই সব নথিপত্রে দেখা গেছে, ১৪ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বেশ কয়েক হাজার অন্তঃসত্ত্বা নারীকে কভিড টিকা দেওয়া হয়েছে। তাঁদের জটিল কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি। অন্যদের যা হয়েছে, এ ক্ষেত্রেও একই প্রতিক্রিয়া। শুধু মাথা ঘোরা ও বমি ভাব একটু বেশি। সূত্র : আনন্দবাজার।