kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

লেখক মুশতাকের মৃত্যুতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন

কারাগারে চিকিৎসক বাড়ানোর সুপারিশ

বাহরাম খান   

৫ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কারাগারে চিকিৎসক বাড়ানোর সুপারিশ

কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি কারাগারের স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত বিষয়গুলো উন্নত করার সুপারিশ করেছে। জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে অন্তত পাঁচটি সুপারিশ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে দেশের সব কারাগারে প্রয়োজনীয়সংখ্যক নার্স, চিকিৎসকসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেওয়া। অক্সিজেন সিলিন্ডার ও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য উপকরণ রাখা, প্রয়োজনীয় জনবল নিশ্চিত করা, নারী কারাগারে নারী ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেওয়া, সব কারাগারে প্রয়োজনীয় অ্যাম্বুল্যান্স রাখতে বলা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. শহিদুজ্জামান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন তুলে দেন। এ ব্যাপারে  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, গাজীপুরের জেলা প্রশাসন ও কারা অধিদপ্তরের গঠিত কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনে কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুকে স্বাভাবিক মৃত্যু বলা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর তাঁর মৃত্যুর কারণ চূড়ান্তভাবে জানা যাবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে ৫৫টি জেলা কারাগার এবং ১৩টি কেন্দ্রীয় কারাগার আছে। এসব কারাগারে কারা কর্তৃপক্ষের নিজস্ব চিকিৎসক আছেন মাত্র সাতজন। এ ছাড়া সিভিল সার্জনসহ শখানেক চিকিৎসক বিভিন্ন জেলা কারাগারে সংযুক্ত আছেন। স্বরাষ্ট্র  মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি আলাদা মেডিক্যাল ইউনিট গঠনের কাজ চলছে। এটি চূড়ান্ত অনুমোদন পেলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পিএসসির মাধ্যমে চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে এসংক্রান্ত জনবল ঘাটতি কমানোর উদ্যোগ নেবে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের অধীনে করা এক মামলায় বন্দি থাকা মুশতাক আহমেদ মারা যান। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করা হয়। এতে গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম, ময়মনসিংহের কারা উপমহাপরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির ও গাজীপুর জেলা কারাগারের সহকারী সার্জন ডা. কামরুন নাহারকে সদস্য করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কমিটি তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, মুশতাকের মৃত্যুতে অস্বাভাবিক কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। কমিটির সদস্যরা বলেছেন, মুশতাকের রক্তচাপ স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক কমে গিয়েছিল। এতে তিনি অচেতন হয়ে মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েন।

আগামী দিনে কারাগারে বন্দি থাকা কারো এমন অবস্থা হলে তাঁরা যেন তাত্ক্ষণিক পর্যাপ্ত চিকিৎসা পান সে বিষয়ে উল্লিখিত সুপারিশগুলো তুলে ধরেন। এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে কালের কণ্ঠকে বলেন, কারাগারের চিকিৎসাব্যবস্থার বিষয়টি অনেক দিন থেকেই আলোচনায় আছে। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে অনেক উদ্যোগ নিলেও সেটা আলোর মুখ দেখেনি। তিনি জানান, স্বতন্ত্র মেডিক্যাল ইউনিট হলে ভালো অগ্রগতি হতো। কিন্তু সেটা কবে আলোর মুখ দেখবে বলা কঠিন।

 

মন্তব্য