kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

ভাড়া না পেয়ে তালা

বন্ধ ঘরে শিশুর মৃত্যুতে মামলা

খুলনা অফিস   

১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বন্ধ ঘরে শিশুর মৃত্যুতে মামলা

এক মাসের বাড়িভাড়া মাত্র চার হাজার টাকা দিতে না পারায় ভাড়াটিয়ার দরজায় তালা দেওয়া হয়েছিল। সেই তালাবদ্ধ ঘরে বালতির পানিতে ডুবে ছয় মাসের শিশু নেলিহার মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে আদালতে মামলা করা হয়েছে। মর্মস্পর্শী ঘটনাটি ঘটেছে গত ১১ জানুয়ারি।

নেলিহার বাবা কাঠমিস্ত্রি ইমদাদুল হক সাগর বাদী হয়ে মুখ্য মহানগর হাকিম ড. আতিকুস সামাদের আদালতে মামলাটি করেন। মামলায় বাড়িওয়ালা কুয়েতপ্রবাসী নূর ইসলাম এবং তাঁর বাবা নওশের আলীকে আসামি করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে আদালত মামলা গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলায় বাদী উল্লেখ করেন, মাত্র এক মাসের ভাড়া না পেয়ে বাড়িওয়ালার বাবা নওশের আলী তাঁদের ঘরে অনধিকার প্রবেশ করে জীবননাশের হুমকি দেন। ঘরে থাকা আসবাবের ক্ষতিসাধন করে প্রধান গেটে তালা লাগিয়ে দেন। ঘর তালাবদ্ধ থাকায় নেলিহা পানিতে ডুবে গেলেও তাকে হাসপাতালে নেওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে লবণচরা থানায় অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ তাঁদের অভিযোগ না নিয়ে সাদা কাগজে সই নেয়। পরে তাঁরা জানতে পারেন, পুলিশ অভিযোগ গ্রহণ করেনি।

এক মাসের ভাড়া বাবদ বকেয়া মাত্র চার হাজার টাকা দিতে না পারায় খুলনা মহানগরীর লবণচরার রিয়াবাজার এলাকায় কাঠমিস্ত্রি ইমদাদুল হকের ঘরে তালা লাগিয়ে দেন বাড়িওয়ালা। ১১ জানুয়ারি বিকেল ৩টার দিকে ছয় মাসের শিশু নেলিহা বালতির পানিতে ডুবে গেলে ঘর তালাবদ্ধ থাকায় তাকে হাসপাতালে নিতে না পারায় তার মৃত্যু হয়। পরবর্তী সময়ে এলাকাবাসী তালা ভেঙে তাদের উদ্ধার করে। বাদীকে মামলা পরিচালনায় সহায়তা করছে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা খুলনা শাখা। সংস্থাটির কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম বলেন, ‘মানবিক কারণে ও ন্যায়বিচারের স্বার্থে দরিদ্র পরিবারটিকে আইনি সহায়তা দিচ্ছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা