kalerkantho

মঙ্গলবার। ৫ মাঘ ১৪২৭। ১৯ জানুয়ারি ২০২১। ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ডিসি-ইউএনওকে গালাগাল

ফরিদপুর জেলা আ. লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১৫ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ফরিদপুর জেলা আ. লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক, চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এসি ল্যান্ডকে ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা-সদরপুর-চরভদ্রাসন) আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের গালাগালের ঘটনায় প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।

এদিকে এমপি নিক্সন চৌধুরী সংবাদ সম্মেলন করে গালাগাল করার বিষয়টি অস্বীকার করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া তাঁর অডিও কল রেকর্ডটি শতভাগ সত্য বলে জানিয়েছেন চরভদ্রাসনের ইউএনও জেসমিন সুলতানা।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের কার্যালয়ে গতকাল বুধবার মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা এতে অংশ নিয়ে এমপি নিক্সন চৌধুরীর বক্তব্যের নিন্দা-প্রতিবাদ ও তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক ঝর্ণা  হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাইনুদ্দিন মানু, দপ্তর সম্পাদক অনিমেষ রায় প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন, এমপি নিক্সন চৌধুরীর এহেন অশালীন আচরণ ও হুমকিতে ফরিদপুরের রাজনৈতিক ভাবমূর্তি বিনষ্ট হয়েছে। এ জন্য তাঁর উপযুক্ত শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।

অডিও রেকর্ড শতভাগ সত্য : ইউএনও

চরভদ্রাসনের ইউএনও জেসমিন সুলতানা বলেছেন, সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরীর অডিও কল রেকর্ডটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোনা যাচ্ছে। এটি শতভাগ সত্য। ওই কল রেকর্ডের দাঁড়ি-কমা পর্যন্ত সঠিক। এখানে এডিট করার কোনো প্রশ্নই আসে না।

এমপি নিক্সন চৌধুরী গত মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর যে বক্তব্য উপস্থাপন করা হয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তাঁর কথাগুলো সুপার এডিট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ওই কল রেকর্ডের ভয়েস তাঁর নয়। এ নিয়ে তিনি প্রশাসনের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউএনও আরো বলেন, ‘আপনারা শুনেছেন যে তিনি কী ভাষায় আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। আপনাদের শোনা রেকর্ডটির মতো ভাষাতেই তিনি আমার সঙ্গে কথা বলেছেন।’ তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী এসি ল্যান্ডকে হুমকি দেন। তখন আমি তাঁর (এসি ল্যান্ডের) নিরাপত্তার স্বার্থে বিষয়টি তাত্ক্ষণিক লিখিতভাবে জেলা প্রশাসককে জানিয়ে গালাগালের অডিও ক্লিপটি পাঠাই।’

প্রকৌশলী রানা বরখাস্ত : এমপি নিক্সন চৌধুরীর অশালীন ভাষায় গালাগাল দেওয়ার ঘটনাটি ঘটেছিল মূলত মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী রানাকে আটক করার ঘটনা নিয়ে। গতকাল তাঁকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারমান পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় গত ১০ অক্টোবর। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে চর অযোধ্যা বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট চলাকালে বুথের সামনে এক ব্যক্তিকে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে তাঁর পরিচয় জানতে চান দায়িত্বরত ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আল-আমিন। নিজেকে এস এম লুত্ফর ওরফে রানা পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি জানান, তিনি মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী। নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠু রাখার স্বার্থে ম্যাজিস্ট্রেট সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে নিজের হেফাজতে নেন। এরপর রানাকে নিজের লোক দাবি করে সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী তাঁকে দ্রুত ছেড়ে দিতে চরভদ্রাসনের ইউএনওকে ফোন করে অশালীন ভাষায় গালাগাল দেন। সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে রানাকে মৌখিকভাবে সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট বিষয়টি জেলা প্রশাসককে লিখিতভাবে জানান। তাতে উল্লেখ করা হয়, সরকারি কর্মচারী হয়েও এস এম লুত্ফর ওরফে রানা উপজেলা নির্বাচনে পোলিং এজেন্টের দায়িত্ব পালন করেছেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অসদাচরণ করেছেন এবং জাল ভোট প্রদানের অপচেষ্টা করেছেন। বিধিমালা লঙ্ঘনের দায়ে তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা