kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩ ডিসেম্বর ২০২০। ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার বিচার শুরু

আসামি মজনুর নির্দোষ দাবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৭ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার বিচার শুরু

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় একমাত্র আসামি মজনুর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন ভার্চুয়াল আদালত। এর মধ্য দিয়ে আসামির বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার কার্যক্রম শুরু হলো। গতকাল বুধবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর বিচারক বেগম মোসাম্মৎ কামরুন্নাহারের আদালত তাঁর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য পরবর্তী সময় আগামী ৯ সেপ্টেম্বর ধার্য করেন।

এর আগে কারাগার থেকে মজনুকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে হাজির দেখানো হয়। এ সময় বিচারক মজনুকে জিজ্ঞাসা করেন, আপনি কোনো আইনজীবী নিয়োগ করেছেন কি না? পরে মজনু বিচারককে জানান, তাঁর আর্থিক সংকটের কারণে আইনজীবী নিয়োগ করতে পারেননি। পরে আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন তিনি। পরে বিচারক মজনুকে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আইনজীবী নিয়োগের আবেদন করতে বলেন।

আদালতে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সিনিয়র আইনজীবী আব্দুর রশীদ বলেন, ‘এই চাঞ্চল্যকর মামলার আসামি মজনুর সঙ্গে বিচারক কথা বলেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তা পড়িয়ে শুনিয়েছেন। তাঁর পরিপ্রেক্ষিতে আসামি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন।’

গত ১৬ আগস্ট এই মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন আদালত। এর আগে গত ১৬ মার্চ মজনুকে একমাত্র আসামি করে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আবু সিদ্দিক।  ওই দিনই আদালত মামলাটি পরবর্তী বিচারের জন্য নারী ও শিশু দমন ট্রাইব্যুনালে বদলির আদেশ দেন। কিন্তু করোনার কারণে আদালত সাধারণ ছুটিতে থাকায় কোনো কার্যক্রম হয়নি।

গত ৮ জানুয়ারি রাজধানীর শেওড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে ধর্ষণের ঘটনায় মজনু নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।  ৯ জানুয়ারি আদালত মজনুর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ১৬ জানুয়ারি মজনু দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। এরপর থেকে মজনু কারাগারে। গত ৫ জানুয়ারি ওই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হন। পরে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

মন্তব্য