kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

হাইকোর্টের রুল

পাপুল-হারুনের আসন কেন শূন্য ঘোষণা হবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাপুল-হারুনের আসন কেন শূন্য ঘোষণা হবে না

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের মোহাম্মদ কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মো. হারুনুর রশীদের সংসদ সদস্য পদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে এই দুটি সংসদীয় আসন শূন্য করার বিষয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। ওই দুজনের সংসদ সদস্য পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা পৃথক দুটি রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার এই রুল জারি করেছেন বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগে শহিদ ইসলাম পাপুলকে সংসদ সদস্য পদ থেকে কেন বহিষ্কার করে তাঁর সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন আদালত। অর্থ ও মানব পাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়ে বর্তমানে কুয়েতের কারাগারে বন্দি আছেন স্বতন্ত্র  এমপি পাপুল।  অন্যদিকে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগের মামলায় পাঁচ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় বিএনপিদলীয় মো. হারুনুর রশীদকে সংসদ সদস্য পদ থেকে কেন বহিষ্কার করে তাঁর সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। মন্ত্রিপরিষদসচিব, আইনসচিব, ওই দুই সংসদ সদস্য, নির্বাচন কমিশন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এই আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেছেন, আদালতের এই আদেশ খারাপ লোকদের জন্য একটি বার্তা।

মো. হারুনুর রশিদের সংসদ সদস্য পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ এবং পাপুলের সংসদ সদস্য পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে একই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল ফয়েজ ভূঁইয়া রিট আবেদন করেন।

মন্তব্য