kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

মৌচাক মার্কেটে বছরে ভ্যাট ফাঁকি ৩৩৪ কোটি টাকা

৬০০-এর মধ্যে ৫৩ দোকানের আছে মূসক নিবন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




মৌচাক মার্কেটে বছরে ভ্যাট ফাঁকি ৩৩৪ কোটি টাকা

রাজধানীর মৌচাক মার্কেটে ছয় শতাধিক দোকানের মধ্যে মাত্র ৫৩টি অনলাইনে ভ্যাট (ভ্যালু অ্যাডেড ট্যাক্স) বা মূসক (মূল্য সংযোজন কর) নিবন্ধন করেছে। এ ছাড়া গত অর্থবছরে এই মার্কেটের কিছু দোকান বেচাকেনার মিথ্যা তথ্য দিয়ে রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে প্রায় ৩৩৪ কোটি টাকা। সম্প্রতি ভ্যাট নিরীক্ষা, গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর থেকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) পাঠানো এক প্রতিবেদনে এই তথ্য মিলেছে।

এ ব্যাপারে ভ্যাট নিরীক্ষা, গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান বলেন, এই অর্থবছরের শুরু থেকেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ভ্যাট গোয়েন্দারা কাজ করছেন। শপিং মলটির বড় বড় দোকানে ভালো বেচাকেনা হলেও খুব সামান্যই রাজস্ব পরিশোধ করে থাকে। রাজধানীর ব্যস্ততম বিপণনকেন্দ্র মৌচাক মার্কেট। এখানে ছয় শতাধিক দোকান থাকলেও অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন করেছে মাত্র ৫৩টি প্রতিষ্ঠান। এই মার্কেটে এমন অনেক দোকান আছে, যেখানে বছরে দুই থেকে তিন লাখ টাকা রাজস্ব পরিশোধের কথা থাকলেও সরকারের কোষাগারে জমা দিয়েছে মাত্র চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা।

এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ বলেন, এ দেশের বহু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান আছে, যেগুলো বছরের পর বছর ভালো ব্যবসা করেও নামমাত্র কিছু রাজস্ব জমা দিয়ে থাকে। জনবল সংকট থাকায় এনবিআর এসব দোকানে যেতে পারে না। এসব জায়গায় এনবিআর যেতে পারলে রাজস্ব আদায় কয়েক গুণ বেড়ে যাবে।

সম্প্রতি এনবিআর প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে পুরনো ভ্যাট নিবন্ধন নম্বর বাদ দিয়ে অনলাইনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নতুন নিবন্ধন নম্বর নিতে নির্দেশ দিয়েছে। এই নিবন্ধন নম্বর প্রতিষ্ঠানের দর্শনীয় স্থানে টাঙিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। এনবিআরের এই নির্দেশ না মানলে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে। এনবিআর এখন ইএফডি যন্ত্রের সাহায্যে ভ্যাট আদায়ের পথে হাঁটছে। এ ক্ষেত্রে অনলাইনে করা নিবন্ধন নম্বর না থাকলে এই যন্ত্রের সাহায্যে এনবিআরের পক্ষে ভ্যাট আদায় সম্ভব হবে না। এনবিআরের নজরদারির বাইরেই থেকে যাবে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান।

ভ্যাট গোয়েন্দাদের অভিযানে মৌচাক মার্কেটের বিভিন্ন দোকানে সরেজমিনে পরিদর্শন করে ৫৩টি দোকানে অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। অন্যদিকে এই মার্কেটের বিভিন্ন দোকানের ভ্যাট পরিশোধের তথ্য দেখতে গিয়ে বিস্মিত হয়েছেন গোয়েন্দারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা