kalerkantho

সোমবার । ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭। ১০ আগস্ট ২০২০ । ১৯ জিলহজ ১৪৪১

ওবায়দুল কাদের বললেন

স্বাস্থ্যবিধির অবহেলায় পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাস্থ্যবিধির অবহেলায় পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিভিন্ন জেলায় কোরবানির পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না, ক্রেতা-বিক্রেতার অবাধ বিচরণ এবং স্বাস্থ্যবিধির প্রতি অবহেলা পরিস্থিতিকে ভয়াবহ করে তুলতে পারে। পশুর হাটের ইজারাগ্রহীতা, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান, স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ বিভাগসহ সবার প্রতি পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর কঠোরতা প্রদর্শনের অনুরোধ রইল। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন তিনি।

করোনার নমুনা পরীক্ষা বাড়াতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনার নমুনা পরীক্ষা ক্রমেই কমছে। আবার পরীক্ষিত নমুনা বিবেচনায় সংক্রমণের শতকরা হার বেশি, যা অঙ্কের হিসাবে প্রায় চার ভাগের একভাগ।’ তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য বিভাগের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব আছে বলে গণমাধ্যমে খবর আসছে। করোনার চিকিৎসা, সংক্রমণ রোধ এবং অন্যান্য রোগের চিকিৎসা অব্যাহত রাখতে সুসমন্বয় প্রতিষ্ঠা জরুরি।’

ল্যাবগুলোর প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রেরণে স্বাস্থ্য বিভাগকে কার্যকর ও দ্রুত উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘নমুনা পরীক্ষায় ফি নির্ধারণের ফলে অনেক অসহায়, কর্মহীন, দরিদ্র মানুষ করোনার লক্ষণ দেখা দিলেও পরীক্ষা করাতে আসে না বলে অভিযোগ আছে। এটি অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়। অসহায় মানুষগুলোর সামর্থ্য বিবেচনায় নিয়ে এ বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে সংশ্লিষ্ট বিভাগের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।’

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘করোনা পরীক্ষার ভুয়া সনদ যেমন উদ্বেগ বাড়িয়েছে, অন্যদিকে বিদেশে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। তাই এ ধরনের অপকর্ম নিন্দনীয় ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ভবিষ্যতে আর কোনো প্রতিষ্ঠান যেন এ ধরনের অপরাধ করতে না পারে, এ জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নজরদারি বাড়ানো দরকার।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা