kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

পান্থপথে গলিতে নারীর লাশ সিসিটিভিতে ধরা ‘খুনি’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পান্থপথে গলিতে নারীর লাশ সিসিটিভিতে ধরা ‘খুনি’

রাজধানীর পান্থপথ ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিসংলগ্ন জামে মসজিদের পাশের গলিতে পড়ে ছিল এক নারীর লাশ। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে কলাবাগান থানার পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। তবে ওই নারীর পরিচয় আর তাঁর হত্যাকারীই বা কে, সে তথ্য পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার ফুটেজের সূত্র ধরে হত্যাকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পাওয়া গেছে  নারীর পরিচয়ও।

পুলিশ বলছে, অনৈতিক কাজের জন্য ওই নারীকে নিয়ে আসেন হত্যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি। কিন্তু টাকা নিয়ে বাগিবতণ্ডার একপর্যায়ে ওই নারীকে হত্যা করেন তিনি।

নিহতের নাম মোমেনা খাতুন (৪২)। তাঁর বাড়ি শেরপুর জেলায়। হত্যায় অভিযুক্ত আনসার আলীর বাড়ি নরসিংদীর শিবপুরে। প্রায় আট বছর ধরে তিনি গ্রিন রোডের একটি বাড়িতে দারোয়ানের কাজ করেন। বাড়িটির কাছেই পড়ে ছিল ওই নারীর মৃতদেহ।

থানার পুলিশ ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত উপকমিশনার মিশু বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, আনসার আলী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, রাতে ওই নারীকে রাস্তায় ঘোরাঘুরি করতে দেখে তাঁর কাছে যান আনসার। এরপর তাঁকে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দিয়ে বাসার ভেতরে নেন। পরে টাকা নিয়ে বনিবনা না হলে ওই নারী চিৎকার করেন। এতে বাসার লোকজন টেরে পেয়ে যাবে, এই ভয়ে তাঁকে গলাটিপে হত্যা করেন আনসার। এরপর লাশ তাঁর টয়লেটে ফেলে রাখেন। কিছুক্ষণ পর লাশটি টেনে রাস্তায় ফেলে দেন।

কলাবাগান থানার ওসি পরিতোষ চন্দ্র বলেন, ওই নারীকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে মনে হচ্ছে। প্রযুক্তির সহায়তায় তাঁর নাম-পরিচয় জানা গেছে। লাশটি ফেলে রাখার স্থানের সিসিটিভি ফুটেজের সহায়তায় আটক সন্দেহভাজন আনসার আলীকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা