kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

এন্ড্রু কিশোর সংকটাপন্ন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এন্ড্রু কিশোর সংকটাপন্ন

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন। ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত এই কণ্ঠশিল্পী নিজের জন্মস্থান রাজশাহীতে বোনের কাছে আছেন। সেখানেই ক্যান্সার চিকিৎসক ভগ্নিপতির তত্ত্বাবধানে তাঁর চিকিৎসা চলছে।

গতকাল রবিবার বিকেলে এন্ড্রু কিশোরের মৃত্যুর গুজব রটে ফেসবুকে। বিকেল ৪টার দিকে তাঁর বোন ডা. শিখা বিশ্বাস জানান, এন্ড্রু কিশোর এখনো বেঁচে আছেন। তবে দুই-তিন দিন ধরেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে। গতকাল সকাল থেকে তিনি কথা বলতে পারছেন না। রাজশাহীতে শিখার ক্লিনিকেই চিকিৎসাধীন ঢাকাই ছবির ‘প্লেব্যাক সম্রাট’। এন্ড্রু কিশোরকে নিয়ে গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে তাঁর বোন সবার কাছে আশীর্বাদ চেয়েছেন।

এন্ড্রু কিশোরের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন রেমন্ড তপু। গতকাল বিকেলে তিনি বলেন, ‘দাদা এখনো বেঁচে আছেন। তবে তাঁর শারীরিক অবস্থার ক্রমেই অবনতি হচ্ছে। জানি না সামনে কী খবর অপেক্ষা করছে!’

দীর্ঘ ৯ মাস সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে গত ১১ জুন দেশে ফেরার পর থেকে রাজশাহীতেই আছেন কালজয়ী বহু গানের এই শিল্পী। গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর শরীরের নানা জটিলতা নিয়ে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন তিনি। শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তাঁর দেহে ব্লাড ক্যান্সার ধরা পড়ে। ছয়টি ধাপে তাঁকে মোট ২৪টি কেমোথেরাপি দেওয়া হয়েছে। শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়ার আগে চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে ১০ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছিলেন।

১৯৭৭ সালে ‘মেইল ট্রেন’ চলচ্চিত্রে ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তাঁর কেউ’ গানের মধ্য দিয়ে এন্ড্রু কিশোরের চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক যাত্রা শুরু হয়। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’, ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘আমার সারা দেহ খেও গো মাটি’, ‘আমার বুকের মধ্যেখানে’, ‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান’, ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘পড়ে না চোখের পলক’, ‘পদ্মপাতার পানি’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’, ‘আমি চিরকাল প্রেমেরই কাঙাল’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় বাংলা গান উপহার দিয়েছেন শ্রোতাদের। তিনি আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা