kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

নেতাকর্মীদের সান্নিধ্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছি

বাহাউদ্দিন নাছিম

তৈমুর ফারুক তুষার   

৬ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নেতাকর্মীদের সান্নিধ্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছি

‘দীর্ঘ প্রায় ৪৫ বছর রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়গুলো ব্যয় করেছি সংগঠনে। দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গ, আলাপ-আলোচনায় জড়িয়ে থাকাটাই আমাদের জীবনে সবচেয়ে আনন্দের কাজ। করোনাকালে এই আপাত বন্দিজীবনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গই সবচেয়ে বেশি মিস করছি।’

করোনা দুর্যোগে ঘরবন্দিত্ব নিয়ে কালের কণ্ঠ’র সঙ্গে আলাপচারিতায় এমন অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। মোবাইল ফোনে প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মীদের থেকে দূরে থাকার অনুভূতি।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে মিশে অন্য ধরনের মজা পাই। তাঁদের সান্নিধ্য উপভোগ করি। দেখা-সাক্ষাৎ হওয়া, পারস্পরিক কুশল বিনিময় করা—সে এক অন্য রকম ভালো লাগা। আমাদের জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়গুলো তো এভাবেই কাটিয়েছি। এখন তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। করোনা সংক্রমণের এই সময়ে তাঁদের সঙ্গে সেভাবে দেখা হচ্ছে না। দলীয় কার্যালয়ে যেতে পারি না, নেতাকর্মীরাও আসতে পারেন না।’

‘করোনা আমাদের দেখিয়ে দিল—আমরা যেসব বিষয় নিয়ে ভাবতাম, যেগুলোকে অতি গুরুত্ব দিতাম সেগুলো সম্পর্কে নতুনভাবে ভাবা অবশ্যই প্রয়োজন। অর্থনীতি, জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিল্প-সাহিত্যে পরাক্রমশালীরাও এই আঘাত মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের এই যে শক্তি, যা দুনিয়ার সব শক্তিকে উল্টে দিচ্ছে, সেটা নিয়ে আমাদের নতুন করে ভাবতে হবে।’

করোনা-পরবর্তী বিশ্বে মানুষের জীবনবোধ নিয়ে নতুনভাবে ভাবনা প্রসঙ্গে এসব কথা বলেন রাজনীতিক বাহাউদ্দিন নাছিম। তিনি বলেন, ‘মানুষের শক্তি যে প্রকৃতির কাছে কত অসহায় তা বিবেচনায় নিয়ে আমাদের পরিবর্তন হতে হবে। সব শক্তির পেছনে, সভ্যতার পেছনে যে একটি সৃষ্টিশীল শক্তি আছে তাকে আমাদের শ্রদ্ধা জানাতে হবে। নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে। বিশেষ করে আমাদের রাজনীতিবিদদের সচেতন হয়ে, গভীরভাবে চিন্তা করে, গবেষণা করে, আলাপ-আলোচনা করে সারা বিশ্বের নেতৃত্বের মধ্যে এমন একটি ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে, যাতে আমরা সম্মিলিতভাবে এই পৃথিবীতে নতুন একটা জাগরণ সৃষ্টি করতে পারি।’

নাছিম বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেশির ভাগ সময় আমাদের বাসায় থাকতে হচ্ছে। দেশের মানুষ ভয়ংকর সংকটে রয়েছে। ৪৫ বছরের রাজনৈতিক জীবনে একসঙ্গে এতটা সময় পরিবারকে কখনো দিতে পারিনি। তবে বাসায় সময় দিতে পারছি সত্য; কিন্তু তা মোটেও উপভোগ্য হচ্ছে না। মানবিক বোধ থেকেই মানুষের দুর্দশার কথা ভেবে ভালো সময় কাটাতে পারছি না।’

বাসায় থাকলেও মহামারিকালে নিজের নির্বাচনী এলাকা মাদারীপুরের মানুষের পাশে দাঁড়াতে সচেষ্ট থাকছেন নাছিম। ত্রাণ তৎপরতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘করোনার সময়ে বাহাউদ্দিন নাছিম ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সাংবাদিক, চিকিৎসকসহ সম্মুখযোদ্ধাদের মাঝে সাবান, স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছি। কয়েক হাজার পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছি। অনেকের সহায়তা নিয়েই মানুষকে যথাসাধ্য সহযোগিতা করে চলেছি।’

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘একজন রাজনীতিবিদের বসে থাকার সময় নেই। যেকোনো দুর্যোগেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হয়। করোনা মহামারির মধ্যে দায়িত্বশীল দল হিসেবে, মানুষের ভালোবাসার দল হিসেবে আমরা নানা তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি। সরকারপ্রধান হিসেবে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যেমন মানুষের জন্য সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন, আমরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও নানা কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে দুঃসময়ে মানুষের পাশে থাকছি। তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধান করছি।’

করোনাকালে পরিবারের নিকটাত্মীয়দের সঙ্গে ধানমণ্ডি ৩/এ রোডের বাসায় থাকছেন বলে জানান বাহাউদ্দিন নাছিম। তিনি বলেন, ‘মা, স্ত্রী, এক কন্যা ও এক পুত্রকে সঙ্গে নিয়ে বাসাতেই থাকছি। আমার মা গ্রামে থাকতে পছন্দ করেন। কিন্তু করোনার জন্য তাঁকে অনুরোধ করে নিয়ে এসেছি। যথাসম্ভব নিরাপদে রাখারও চেষ্টা করছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা