kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

ইতালিতে স্বাস্থ্যবিধি না মানার খেসারত

লাৎজিওতে বাংলাদেশিদের গণহারে করোনা পরীক্ষা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৫ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লাৎজিওতে বাংলাদেশিদের গণহারে করোনা পরীক্ষা

স্বাস্থ্যবিধি না মানার অভিযোগ এবং সংক্রমণ হার বৃদ্ধির মধ্যে ইতালির লাৎজিও অঞ্চলে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের সদস্যদের গণহারে নভেল করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) পরীক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ থেকে ইতালি ফিরে যাওয়া অন্তত ১০ জনের কভিড-১৯ ধরা পড়ার পর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ‘ক্লাস্টার ট্রান্সমিশনের’ (গুচ্ছ সংক্রমণ) আশঙ্কা করছে। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের সদস্যদের করোনা পরীক্ষা করানোর আহ্বান জানানো হয়েছে।

লাৎজিও স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান আলেসিও ডি’ আমাতো এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাংলাদেশিদের জন্য আগামীকাল সোমবার থেকে আলাদা একটি কেন্দ্র খোলা হচ্ছে। তিনি বাংলাদেশিদের পরীক্ষা করানোর আহ্বান জানিয়েছেন। তবে এ পরীক্ষা স্বেচ্ছায় নমুনা প্রদানের ভিত্তিতে অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ইতালির পরিসংখ্যান বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ইতালিতে প্রায় এক লাখ ৪০ হাজার বাংলাদেশির মধ্যে ৩৭ হাজারই লাৎজিও অঞ্চলে বসবাস করে। ওই ৩৭ হাজার জনের মধ্যে ৩২ হাজারেরই বসবাস রাজধানী রোমে।

লাৎজিও অঞ্চলে গত ফেব্রুয়ারি মাসে করোনা সংক্রমণ দেখা দিলেও তার হার খুব বেশি ছিল না। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে কিছু গুচ্ছ সংক্রমণ কর্তৃপক্ষের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। লাৎজিও স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে যারা ইতালিতে ফিরবে তাদের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আমরা বিমানবন্দর ও স্বাস্থ্য বিভাগকে কড়াকড়ি আরোপ করতে বলেছি।’ রয়টার্সের প্রতিবেদনে বাংলাদেশের কভিড-১৯ পরিস্থিতিও তুলে ধরা হয়েছে।

এদিকে ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাস গত বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে সাত বাংলাদেশির নাম ও ফোন নম্বর উল্লেখ করে জানিয়েছে, ওই সেবাপ্রার্থীরা গত ২২ জুন দূতাবাসে এসেছিলেন। কিন্তু তাঁরা যে মোবাইল নম্বর দিয়েছেন তাঁর মাধ্যমে ইতালির স্বাস্থ্য বিভাগ তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি। আগামী ৭ জুলাই পর্যন্ত ওই ৭ বাংলাদেশিকে ঘর থেকে কোনোক্রমেই বের না হতে এবং ঘরেও সতর্কতামূলক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, করোনা সংক্রমিত এক বাংলাদেশি গত মাসে ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাসে গিয়েছিলেন। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ইতালি কর্তৃপক্ষ ওই সময় সেবা নিতে যাওয়া অপর বাংলাদেশিদেরও হোম কোয়ারেন্টিন পালনের নির্দেশনা দেয়।

বাংলাদেশে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর দিকে ইতালিফেরত এক দল বাংলাদেশি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বাগিবতণ্ডায় জড়ায়। জানা গেছে, করোনা মহামারির কারণে বাংলাদেশে আটকে পড়া ব্যক্তিদের প্রায় ৮৫০ জন গত জুন মাসে ইতালি ফিরে গেছে। তাদের বেশির ভাগই বাংলাদেশের পাশাপাশি ইতালিরও নাগরিক বা ‘পার্মানেন্ট রেসিডেন্ট’। ওই ৮৫০ জনের মধ্যে অন্তত ২০ জনের করোনা ধরা পড়েছে। এ ছাড়া তাদের অনেকেই ইতালিতে ফিরেও স্বাস্থ্যবিধি মানেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে বাংলাদেশ থেকে ইতালি ফিরে যাওয়া ব্যক্তিদের পরিবারের অন্য সদস্যরাও করোনা সংক্রমিত হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা