kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

ত্রাণ আত্মসাৎ

হবিগঞ্জের দুই জনপ্রতিনিধি বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

৫ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হবিগঞ্জের দুই জনপ্রতিনিধি বরখাস্ত

ত্রাণ অনিয়মে জড়িত থাকার অভিযোগে আরো দুই জনপ্রতিনিধিকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। গতকাল বৃহস্পতিবার এসংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রণালয়টি। বহিষ্কৃত রফিকুল ইসলাম মলাই হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং শফিউল ইসলাম সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। 

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর নগদ অর্থ সহায়তার তালিকা প্রণয়নে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগে লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম মলাইকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে নগদ প্রণোদনার তালিকায় একটি মোবাইল নম্বরে ৯৯ জন, একটিতে ৯৭ জন, একটি ৬৫ জন ও একটিতে ৪৫ জনের নাম দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। মোবাইল নম্বরগুলো চেয়ারম্যানের আত্মীয় এবং ঘনিষ্ঠজনদের। এ ছাড়া মানবিক সহায়তা কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি দরের চাল আত্মসাতের অভিযোগে সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শফিউল ইসলামকেও বরখাস্ত করা হয়েছে। এই দুই জনপ্রতিনিধির অপরাধ ইউনিয়ন পরিষদের ক্ষমতা প্রয়োগের দৃষ্টিকোণে সমীচীন নয় বলে প্রজ্ঞাপনে জানিয়েছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন এবং সমবায় মন্ত্রণালয়। ফলে তাঁদের দুজনকেই স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪(১) ধারা অনুযায়ী যার যার পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ওই চেয়ারম্যান ও সদস্যকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না—এই মর্মে ১০ কার্য দিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলেছে মন্ত্রণালয়। জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে চিঠির জবাব দিতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর নানা অনিয়মে জড়িত থাকার অভিযোগে সারা দেশের মোট ৮৭ জন জনপ্রতিনিধিকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে ২৯ জন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, ৫২ জন ইউপি সদস্য, একজন জেলা পরিষদ সদস্য, চারজন পৌর কাউন্সিলর এবং একজন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা