kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

করোনাজয়ী

মুমূর্ষু ব্যবসায়ীকে বাঁচাতে প্লাজমা দিলেন রাসেল

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

৩০ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুমূর্ষু ব্যবসায়ীকে বাঁচাতে প্লাজমা দিলেন রাসেল

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জীবন সংশয়ে পড়া এক ব্যবসায়ীকে বাঁচাতে রক্তের প্লাজমা দিয়েছেন কুমিল্লার রাসেল ভূঁইয়া। করোনাকে পরাস্ত করে তিতাস উপজেলার মৌটুপি গ্রামের এ কুস্তিগির সাধারণ কৃষকের ধান কেটে সহায়তার পর এবার পরোপকারের আরেক নজির স্থাপন করলেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভাইরাসমুক্ত হওয়ার পর রাসেল ভূঁইয়া মুমূর্ষু অবস্থায় আইসিইউতে থাকা ঢাকার বিশিষ্ট গার্মেন্ট ব্যবসায়ীকে বাঁচাতে রক্তের প্লাজমা দিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার কুমিল্লার গৌরীপুর থেকে ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত এভার কেয়ার হসপিটালসে গিয়ে তিনি এ প্লাজমা দেন। অসীম সাহসী ও মানবিক মানুষ কুস্তিগির রাসেলের এ মহানুভবতা অনুকরণীয় হয়ে থাকবে বলে মন্তব্য করেন কুমিল্লার হোমনার সংসদ সদস্য সেলিমা আহমেদ মেরী।

জানা গেছে, ৩০ বছরের রাসেল করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর নিজ উদ্যোগে মৌটুপি গ্রামে নিজের বাড়ির আশপাশের মানুষকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সুরক্ষাসামগ্রী দেন। সে সময় এলাকায় বাইরে থেকে কে কে এলো তাও তদারক করেন তিনি। নমুনা পরীক্ষার মাধ্যমে গত ১১ এপ্রিল জানা যায় রাসেল করোনা পজিটিভ। তবে তিনি সাহস হারাননি।

স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন কোনো ওষুধ না দিয়ে তাঁকে টক ফল ও বেশি বেশি পানি পান করতে বলেন। তবে অন্য এক চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তিনি ওষুধ খান। ১৫ এপ্রিল তাঁর দ্বিতীয় দফা নমুনা নেওয়া হয়। সেই পরীক্ষায় তাঁর নেগেটিভ রিপোর্ট আসে। ২৪ এপ্রিল তৃতীয় দফা নমুনা পরীক্ষায়ও ফল নেগেটিভ আসে। তিনি করোনামুক্ত হন। করোনার বিরুদ্ধে সাহসের সঙ্গে লড়েছেন রাসেল। তাঁর বাবা এবং স্ত্রীও করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা