kalerkantho

শনিবার। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৫ ডিসেম্বর ২০২০। ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

ভারতে এক দিনে সর্বোচ্চ ছয় হাজার রোগী শনাক্ত

► ব্রাজিলে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়াল
► করোনায় মৃতদের সম্মানে পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ ট্রাম্পের
► এখনো করোনা নেই ১২ দেশ-অঞ্চলে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



ভারতে এক দিনে সর্বোচ্চ ছয় হাজার রোগী শনাক্ত

ভারতে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ছয় হাজার ৮৮ জনের দেহে নতুন করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। তাতে দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে মোট এক লাখ ১৮ হাজার ৪৪৭ জনে। করোনায় নতুন করে আরো ১৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে এ পর্যন্ত প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৫৮৩।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ৪৮ হাজার ৫৩৩ জন সুস্থ হয়ে ওঠায় তাদের হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬৬ হাজার ৩৩০।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র এক কর্মকর্তা বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে এ পর্যন্ত ৪০.৯৭ শতাংশ রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছে। বৃহস্পতিবার সকালে এ হার ছিল ৪০.৩১ শতাংশ। মোট আক্রান্ত রোগীর মধ্যে বিদেশি নাগরিকরা অন্তর্ভুক্ত আছে।

সম্প্রতি প্রতিবেশী দেশটিতে কড়াকড়ি শিথিল করার পর থেকে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। ভারতে সংক্রমণের অন্যতম এ ‘হটস্পটে’ মৃতের সংখ্যাও প্রায় এক হাজার ৫০০-এর কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। আক্রান্তদের চিকিৎসায় বেসরকারি হাসপাতালগুলোর ৮০ শতাংশ শয্যার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার কথা জানিয়েছে রাজ্যটির সরকার। বেসরকারি হাসপাতালে কভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার খরচ বেঁধে দেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে।

বিধি-নিষেধ শিথিল হওয়ায় দেশটিতে আগামী সোমবার থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে সীমিত আকারে বিমান চলাচল শুরু হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার ভারতের বেসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রণালয় টিকিটের দামের সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে। জুনের প্রথম দিন থেকে যাত্রীবাহী ২০০টি ট্রেন চালু হবে। এ জন্য গতকাল থেকে সুনির্দিষ্ট কিছু স্টেশনে সংরক্ষিত আসনের টিকিট বুকিং শুরু হয়েছে। এরপর ধাপে ধাপে আরো ট্রেন চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীয়ূষ গয়াল। বর্তমানে পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরাতে দিল্লি ও অন্যান্য শহরে ২০টি বিশেষ ‘শ্রমিক’ ট্রেন চালু আছে।

ব্রাজিলে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়াল

ব্রাজিলে মহামারি করোনাভাইরাসে প্রাণহানির সংখ্যা গত বৃহস্পতিবার ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। দেশটিতে কভিড-১৯ ভাইরাসে এক দিনে সর্বোচ্চ এক হাজার ১৮৮ জনের মৃত্যু ঘটায় সেখানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ২০ হাজার ৪৭। দেশটিতে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মোট তিন লাখ ১০ হাজার ৮৭।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্রাজিলে সরকারিভাবে ঘোষিত সংখ্যার চেয়ে দেশটিতে করোনাভাইরাসে প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেশি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ সেখানে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম পরীক্ষা করা হচ্ছে।

এদিকে ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে লকডাউন তুলে নিতে চাপ দেওয়ায় দেশটির ২৭টি রাজ্য গভর্নরের বেশির ভাগের সঙ্গে তিনি সরাসরি বিরোধে জড়িয়ে পড়েছেন। প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো এ ভাইরাসকে একটি ‘সামান্য ফ্লুর’ সঙ্গে তুলনা করেছেন। পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক ক্ষতি বন্ধে ফের কাজ শুরু করতে দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

অপরদিকে রাজ্য ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের ঘরে থাকার এবং জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে গেলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জোরালো আহ্বান জানিয়েছে। দেশটিতে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এভাবে পাল্টাপাল্টি পদক্ষেপের ঘোষণা দেওয়ায় বিষয়টি আদালতে গড়ালে আদালত রাজ্য ও স্থানীয় সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের পক্ষে সমর্থন দেন।

করোনায় মৃতদের সম্মানে পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ ট্রাম্পের

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসে প্রাণ হারানো আমেরিকান নাগরিকদের সম্মানে মার্কিন পতাকা তিন দিন অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। দেশটিতে কভিড-১৯ ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এক লাখের নিশানার দিকে এগিয়ে চলার মধ্যে বৃহস্পতিবার এ ঘোষণা দেওয়া হলো। এ সংখ্যা নির্মম ওই মাইলস্টোনে পৌঁছানোর সময় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার এ নির্দেশ ডেমোক্রেটদেরও অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ট্রাম্প টুইটার বার্তায় বলেন, ‘করোনাভাইরাসে আমরা যেসব আমেরিকান নাগরিককে হারিয়েছি তাদের স্মরণে আগামী তিন দিন আমি সব ফেডারেল ভবন এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধে মার্কিন পতাকা অর্ধনমিত রাখব।’

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, মার্কিন সামরিক বাহিনীতে দায়িত্ব পালনকালে যেসব সৈন্য প্রাণ হারিয়েছে, তাদের সম্মানে যুক্তরাষ্ট্রের মেমোরিয়াল ডে পালনে সোমবার জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে।

এখনো করোনা নেই ১২ দেশ-অঞ্চলে

বৈশ্বিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাবে, গতকাল বাংলাদেশ সময় রাত ৮টা পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ভাইরাসটির বিস্তৃতি হয়েছে। রোগী শনাক্ত হয়েছে সোয়া ৫২ লাখ। এ সময়ের মধ্যে তিন লাখ ৩৫ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। সুস্থ হয়েছে ২১ লাখ রোগী।

অবশ্য এখনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি ১২টি দেশ ও অঞ্চলে। সে কারণে এসব দেশের মানবজীবনের ছন্দপতন হয়নি। ওই দেশ-অঞ্চলগুলো হলো—কিরিবাতি, মার্শাল আইল্যান্ড, মাইক্রোনেসিয়া, নাউরু, উত্তর কোরিয়া, পালাউ, সামোয়া, সলোমান আইল্যান্ড, টেঙ্গো, তুর্কমেনিস্তান, টুভালু ও ভানুয়াতু।

মধ্যপ্রাচ্যে নতুন প্রতিরোধ ব্যবস্থা

ইরান ও তুরস্কের পর মধ্যপ্রাচ্যের সৌদি আরব, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ নানা দেশে জটিল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। কয়েক মাসে কভিড-১৯ মহামারি মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরবসহ এ অঞ্চলের বড় অর্থনীতির দেশগুলো এ চাপ মোকাবেলা করছে।

তুর্কি স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেতিন জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে অন্য প্রদেশে যাতায়াত করতে হলে ট্রাভেল কোড দেখাতে হবে।

কাতারের হাসপাতালে কভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় সুস্থ হওয়া রোগীদের রক্তের প্লাজমা ব্যবহার করা হচ্ছে।

অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে মার্চ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত কয়েক দফা অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে। সূত্র : এএফপি, পিটিআই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা