kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

মধ্যরাতেও ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে খাদ্যসামগ্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মধ্যরাতেও ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে খাদ্যসামগ্রী

ঘড়ির কাঁটায় তখন রাত ২টা। চারপাশটা ঘুটঘুটে অন্ধকার। গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন চট্টগ্রামের বোয়ালখালীর মীরপাড়া এলাকার বাসিন্দারা। চার বছর আগে বিদেশফেরত আবুল কাশেমের ঘরের দরজায় হঠাৎ ধাক্কা। ভয়ে আঁতকে ওঠেন কাশেম! ঠিক তখনই বাইরে থেকে আওয়াজ আসে—‘ভয় পাবেন না, আমি ওসি বোয়ালখালী।’ অনেকটা ভয়ে ভয়ে দরজা খোলেন কাশেম। দরজা খুলে দেখলেন পুলিশ কর্মকর্তারা খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেট নিয়ে হাজির হয়েছেন তাঁর ঘরের দরজায়। গত সোমবার মাঝরাতে খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেট হাতে দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তারা তাঁকে করোনা মোকাবেলায় সরকারি নির্দেশনা মেনে ঘরে থাকার পরামর্শ দেন। আগামী দিনেও প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সাহায্যের পাশাপাশি চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারের সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে জানান। একইভাবে রাতে পশ্চিম গোমদণ্ডীর বাসিন্দা দিনমজুর আলমগীরের ঘরেও পৌঁছে দেওয়া হয় খাদ্যসামগ্রী। এভাবে এ পর্যন্ত বোয়ালখালীর ৬০০ পরিবারকে পুলিশের পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে সামাজিক দূরত্ব না মেনে জয়পুরহাট শহরে ত্রাণ নিতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে শহরের প্রধান সড়কের সিও কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন চন্দ্র রায় বলেন, ত্রাণ নয় সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি দরের চাল পৌর মেয়রের পক্ষ থেকে বিনা মূল্যে বিতরণের সময় ব্যবস্থাপনা ত্রুটির কারণে কিছুটা বিশৃঙ্খলা হয়। এদিকে জয়পুরহাট শহরের বাটার মোড়ে প্রতিদিন কাজের সন্ধানে অপেক্ষমাণ দিনমজুরদের খাদ্য সহায়তা দিয়েছে সদর উপজেলা প্রশাসন।

এ ছাড়া গোপালগঞ্জ, ঝালকাঠি, কুড়িগ্রাম, মুন্সীগঞ্জ, নওগাঁ, ফরিদপুর, মাগুরা, আমতলীর বরগুনা, নাটোরের সিংড়া, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর ও শাহজাদপুর, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ, বরিশালের বাবুগঞ্জ, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া, যশোরের কেশবপুরেও স্থানীয় প্রশাসন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এবং ব্যক্তিগত উদ্যোগে হতদরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা]

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা