kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

পানির বিলম্ব ফি মওকুফ করেনি ওয়াসা

শাখাওয়াত হোসাইন   

২৮ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পানির বিলম্ব ফি মওকুফ করেনি ওয়াসা

করোনাভাইরাস আতঙ্কে ঢাকা ত্যাগ করেছেন অনেক নগরবাসী। বিদ্যুৎ ও গ্যাস বিলের বিলম্ব ফি মওকুফ করার ঘোষণা এলেও পানির ক্ষেত্রে তা করেনি ঢাকা ওয়াসা। অনলাইনে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পানির বিল পরিশোধ করতে গ্রহকদের নির্দেশনা দিয়েছে এই সংস্থাটি। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বিল দিতে না পারলে নিয়মানুযায়ী ৫ শতাংশ জরিমানা আরোপ করতে পারে সংস্থাটি।

ওয়াসার তথ্য মতে, ঢাকায় তিন লাখ ৭৯ হাজার ৬৪৮টি পানির সংযোগ রয়েছে। এর বাইরে নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর জন্য বেশ কিছু সংযোগ আছে। নির্ধারিত মাসে পানির বিল পরিশোধ না করলে ৫ শতাংশ হারে জরিমানা দিতে হয় গ্রাহকদের। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনলাইনে পানির বিল পরিশোধ করতে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে ওয়াসার পক্ষ থেকে। পানির বিল অনলাইনে পরিশোধ করেন গ্রাহকরা। কিন্তু গ্রাহকদের বেশির ভাগই বিভিন্ন দোকানে গিয়ে অনলাইনে পরিশোধ করতে অভ্যস্ত। করোনার কারণে ওই সব দোকান বন্ধ থাকায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তারা বিল পরিশোধ করতে পারবেন কি-না তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন অনেকেই। এ ছাড়া অনেকেই ঢাকার বাইরে চলে যাওয়ায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পানির বিল দিতে পারবেন কি না তা নিয়ে উত্কণ্ঠা রয়েছে বাড়ির মালিকদের মধ্যে।

উত্তর বাড্ডার মসজিদ রোডের বাসিন্দা শামসুজ্জোহা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘অনেক ভাড়াটিয়া বাড়ি চলে গেছে। এ সংকটের মধ্যে বাসাভাড়া ও ইউটিলিটি বিল চাইতে পারিনি। তবে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের বিল বিলম্বে পরিশোধ করলে কোনো ধরনের জরিমানা হবে না। কিন্তু পানির বিল পরিশোধে এক মাস দেরি হলে বিলম্ব ফি দিতে হবে। ওয়াসার উচিত ছিল জরিমানা মওকুফ করা। আমরা যেসব দোকানে গিয়ে বিল জমা দিতাম তা বন্ধ রয়েছে।’

এদিকে করোনাভাইরাস সংকটের মধ্যে ঢাকার কোনো বাড়ির পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করতে ঢাকা ওয়াসাকে চিঠি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। গত বুধবার এসংক্রান্ত একটি চিঠি ঢাকা ওয়াসায় পাঠানো হয়েছে বলে কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পানি সরবরাহ অনুবিভাগ) মো. জহিরুল ইসলাম। তবে জরিমানা মওকুফের বিষয়টি সম্পূর্ণ ওয়াসা বোর্ডের এখতিয়ার বলে জানিয়েছেন তিনি।

ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০১০ সাল থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত সব জরিমানা মওকুফ করেছে ঢাকা ওয়াসা। করোনা উপলক্ষে বিলম্ব ফি মওকুফের কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে মুজিববর্ষ উপলক্ষে জরিমানা মওকুফের তারিখ বাড়ানো হতে পারে। অনলাইনে ঘরে বসে পানির বিল পরিশোধ করতে গ্রাহকদের জানানো হয়েছে। যেকোনো ব্যক্তি সহজেই ঘরে বসে পানির বিল দিতে পারবেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা