kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

সবিশেষ

লকডাউনে ১৩৫ কিমি হেঁটে বাড়ি ফিরলেন শ্রমিক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লকডাউনে ১৩৫ কিমি হেঁটে বাড়ি ফিরলেন শ্রমিক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। সব দোকানপাট বন্ধ। বন্ধ সব যান চলাচল, ট্রেন চলাচল। এর মধ্যেই খালি পেটে ১৩৫ কিলোমিটার পথ হেঁটে বাড়ি ফিরেছেন মহারাষ্ট্রের ২৬ বছর বয়সী দিনমজুর নরেন্দ্র শেলকে।

তিনি কাজ করতেন পুনেতে। লকডাউনে কাজের অনিশ্চয়তা দেখা দেওয়ায় গ্রামের বাড়ি চন্দ্রপুরের সাওলি এলাকার জাম্ব গ্রামের নিজ বাড়িতেই ফেরার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। রেলযোগাযোগ বন্ধ হওয়ার আগে শেষ ট্রেন ধরে পুনে থেকে নাগপুরে পৌঁছেছিলেন; কিন্তু এর পরই পড়েন বিপাকে। কোনো উপায় না দেখে নরেন্দ্র শেষ পর্যন্ত নাগপুর-নাগবিদ সড়ক ধরেই বাড়ির পথে হাঁটা শুরু করেন। টানা দুই দিন শুধু পানি খেয়ে ১৩৫ কিলোমিটার হাঁটার পর এ যুবক বুধবার রাতে মহারাষ্ট্রের সিন্ধেওয়াহি এলাকার শিবাজি স্কয়ারে পুলিশের টহলদলের সামনে পড়েন।

সিন্ধেওয়াহি থানার সহকারী পরিদর্শক নিশিকান্ত রামতেকে জানান, টহলদলের সদস্যরা নরেন্দ্রর কাছে কারফিউ ভঙ্গের কারণ জানতে চাইলে চন্দ্রপুরের এ বাসিন্দা তাঁর দুর্দশার কথা জানান। বাড়ি ফিরতে তিনি যে দুই দিন ধরে খালি পেটে হাঁটছেন, বলেন তা-ও। নরেন্দ্রকে তাত্ক্ষণিকভাবে কাছাকাছি একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে পুলিশের এক উপপরিদর্শক বাড়ি থেকে নরেন্দ্রর জন্য খাবারও নিয়ে আসেন।

চিকিৎসকের অনুমতি পাওয়ার পর পুলিশ একটি গাড়িতে করে নরেন্দ্রকে সিন্ধেওয়াহি থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে জাম্ব গ্রামে দিয়ে আসে। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে এ যুবককেও বাড়িতে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। প্রশাসন তাঁর স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখবে বলেও জানান রামতেকে। সূত্র : নিউজ১৮.কম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা