kalerkantho

সোমবার । ২৩ চৈত্র ১৪২৬। ৬ এপ্রিল ২০২০। ১১ শাবান ১৪৪১

সিবিডি প্রকল্প পরিদর্শনে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান

পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে সিকদার গ্রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে সিকদার গ্রুপ

সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্ট (সিবিডি) প্রকল্প পরিদর্শনে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান ও সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার। ছবি : কালের কণ্ঠ

পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী সিকদার গ্রুপ। ২০১৮ সালে রাজউক থেকে ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্ট’ (সিবিডি) নির্মাণ করতে পূর্বাচল নতুন টাউনশিপ প্রকল্পের ১৯ নম্বর সেক্টরে মোট ১১৪ একর জমি বরাদ্দ পায় পাওয়ার প্যাক হোল্ডিংস লিমিটেড ও কাজিমা করপোরেশন। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৬ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ৬০ হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি এরই মধ্যে পাওয়া গেছে। আর নির্মাণের প্রথম দুই বছরে নির্মাণসামগ্রী বাবদ ৩০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করা হবে।

গত সোমবার দুপুরে পূর্বাচল উপশহরের পূর্বাচল নিউটাউন এরিয়া ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্ট’ (সিবিডি) প্রকল্প পরিদর্শন করেন বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। এ সময় সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার, জেডএইচ সিকদার ওম্যানস মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের চেয়ারম্যান মিসেস মনোয়ারা সিকদার, সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রন হক সিকদার এবং প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তাঁরা প্রকল্পের অগ্রগতি প্রত্যক্ষ করেন।

অর্থনীতিবিদদের ধারণা, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সামগ্রিক অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। ৪৭৩ মিটার উঁচু ১১১ তলাবিশিষ্ট আইকনিক লিগ্যাসি টাওয়ারসহ মোট ৪২টি আকাশচুম্বী স্থাপনা এখানে রাখা হবে। আইকনিক লিগ্যাসি টাওয়ারটি হবে বিশ্বের পঞ্চম উঁচু ভবন। এর ৯৬ তলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রা সম্পর্কিত একটি জাদুঘর থাকবে। আর ৭১ তলাবিশিষ্ট ভবনটি হবে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতির নিদর্শন হিসেবে। এ ছাড়া ৫২ তলা ভবনটি তুলে ধরা হবে ১৯৫২ সালে ভাষার জন্য ত্যাগ ও মহিমার নিদর্শন হিসেবে। এই তিনটি ভবন বা টাওয়ারের নাম হবে ‘বঙ্গবন্ধু ট্রি টাওয়ার’। প্রস্তাবিত এই বঙ্গবন্ধু ট্রি টাওয়ার তিনটি এল—ল্যাঙ্গুয়েজ, লিবারেশন ও লিগ্যাসি প্রতীক বহন করবে।

১১৪ একর জমির ওপর পুরো প্রকল্পে একটি আধুনিক ও উচ্চ প্রযুক্তির সুরক্ষাপ্রাচীর স্থাপন করা হবে। এ মহাপ্রকল্পটি দ্রুত বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা কামনা করেন উপস্থিত প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা