kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ চৈত্র ১৪২৬। ৩১ মার্চ ২০২০। ৫ শাবান ১৪৪১

সবিশেষ

ম্যালেরিয়া হয়েছে কি না জানা যাবে ফোনে থুতু ফেলে!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ম্যালেরিয়া হয়েছে কি না জানা যাবে ফোনে থুতু ফেলে!

রক্ত দিতে হবে না। আপনার স্মার্টফোনে থুতু ফেললেই জেনে যাবেন ম্যালেরিয়া হয়েছে কি না। জানতে পারবেন কতটা আক্রান্ত হয়েছেন ম্যালেরিয়ায়। কম না বেশি। আর কয়েক দিন পর হয়তো আপনার স্মার্টফোনে ফেলা থুতুই জানিয়ে দিতে পারবে আপনি ঠিক কতটা অবসাদে ডুবে রয়েছেন বা উদ্বেগে রয়েছেন কতটা। বলে দিতে পারবে কোনো একটি মুহূর্তে ঠিক কতটা মানসিক চাপে আপনি বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছেন। নাকি যতটা বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছেন মনে করছেন ততটা হননি। জেনে ফেলা যাবে হার্টের সমস্যায় কতটা ভুগছি আমি-আপনি। সম্প্রতি এসংক্রান্ত গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে ‘নেচার’ গ্রুপের আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান জার্নাল মাইক্রোসিস্টেমস অ্যান্ড ন্যানোইঞ্জিনিয়ারিংয়ে।

আমাদের রক্ত বা নানা ধরনের দেহরস (বডি ফ্লুইড) অথবা থুতুতে (স্যালাইভা) মিশে থাকে নানা ধরনের হরমোন ও প্রোটিন। বিজ্ঞানের পরিভাষায় যাদের বলা হয়, বায়ো-মার্কার্স। তাদের মধ্যে অন্যতম কর্টিসল, আলফা অ্যামাইলেজ ও প্যারা-থাইরয়েড হরমোন (পিটিএইচ), যেগুলো নানা ধরনের সংক্রমণের সঙ্গে জড়িত। বিভিন্ন সংক্রমণের সঙ্গে সঙ্গে রক্ত, নানা ধরনের দেহরস ও থুতুতে এদের পরিমাণের তারতম্য ঘটে। সেই তারতম্য হয়েছে কি না বা হলে কতটা হয়েছে, তা থুতু পরীক্ষার পর আমরা এবার নিজেদের স্মার্টফোন থেকেই জেনে নিতে পারব। আর তা জেনে নিতে পারব স্মার্টফোনের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া খুব পাতলা আর ছোট্ট একটা চিপে থুতু ফেলে। এ জন্য স্মার্টফোনে বিশেষ একটি অ্যাপ ডাউনলোড করে নিতে হবে।

গবেষক স্থিতধী জানিয়েছেন, চিপে একটি কেমোলুমিনোসেন্ট পাউডার রাখা আছে। দুই ধরনের অ্যান্টিবডির সঙ্গে রক্ত বা থুতু থেকে এসে মিশছে যে হরমোন বা প্রোটিন, তাদের বিক্রিয়ায় ওই পাউডারের জন্যই আলো বেরিয়ে আসবে। সেই আলো দেখেই বোঝা যাবে সংক্রমণ হয়েছে কি না। এই আলো পাওয়ার জন্য বাইরে থেকে আলো ফেলতে হচ্ছে না। আলোর জন্ম হচ্ছে বিক্রিয়াজাত শক্তি থেকেই। সেই আলোর উজ্জ্বলতার বাড়া-কমা মেপে আমার, আপনার স্মার্টফোনে ডাউনলোড করা একটি অ্যাপ জানিয়ে দেবে সংক্রমণের মাত্রা কতটা। আর সেটা করা সম্ভব হবে খুব সামান্য বিদ্যুৎশক্তিতেই। সূত্র : আনন্দবাজার।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা