kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

ওবায়দুল কাদের বললেন

সিটি নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, বাড়াবাড়ি চান না প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিটি নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, বাড়াবাড়ি চান না প্রধানমন্ত্রী

ফাইল ছবি

আসন্ন ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ ও বাড়াবাড়ি চান না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি গতকাল রবিবার দুপুরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে মোটর চালক লীগের সম্মেলনে বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সুষ্ঠু ভোটগ্রহণ নিয়ে বিএনপির সংশয় প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, “তারা বলছে, সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সরকারি সংস্থাকে বাধ্য করে ব্যবহার করা হচ্ছে। সিটি নির্বাচন সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী কয়েক দিন আগে বিদেশে যাওয়ার সময় সরকারের সব সংস্থার প্রধানদের বলেছেন—‘এই নির্বাচনে আমি কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ, কোনো ধরনের বাড়াবাড়ি চাই না।’ কোনো এজেন্সি কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ যেন না করে, সে ব্যাপারে ক্লিয়ার মেসেজ দিয়েছেন।”

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, “কাজেই এখানে সংশয়ের কোনো কারণ নেই। শেখ হাসিনা বলেছেন—নির্বাচনে জনগণ যা চায়

তাই হবে। এত কাজ করার পরও জনগণ যদি ভোট না দেয় জোরাজুরি, জবরদস্তি করে জনসমর্থন আদায় করে ক্ষমতায় থাকার কোনো ইচ্ছা আমার নেই।’”

সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “আমাদের পার্টিকেও একই মেসেজ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি আমাদের বলেছেন—‘ঘরে ঘরে যাও, জনগণ যাকে ভোট দেবে সে-ই নির্বাচিত হবে।’ কাজেই আমরা সরকারে পক্ষ থেকে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করব না, এটা পরিষ্কার। আগেও বলেছি, এখনো স্পষ্টভাবে বলছি।”

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে আপনাদের যত নালিশ, যত অভিযোগ। নির্বাচন আর আন্দোলনে পারেন না, এখন শুধু নালিশ আর নালিশ। আপনাদের এই নালিশের কোনো বাস্তবতা নেই। আসলে নির্বাচনে তাদের অবস্থা কী হবে সেটা তারা বুঝে গেছে।

এই নির্বাচনে বিজয়ের ব্যাপারে তারা যথেষ্ট সন্দিহান। বিজয়ী হতে পারবে না বলেই তারা আজকে বিভিন্ন ধরনের নালিশ করার পথ বেছে নিয়েছে। তারা যত অপপ্রচারই করুক দেশের মানুষ শেখ হাসিনাকেই চায়, আওয়ামী লীগকেই চায়।’

ওবায়দুল কাদের তাঁর বক্তব্যে মোটর চালক লীগের নেতাকর্মীদের চাঁদাবাজি থেকে দূরে থাকতে আহ্বান জানান। সংগঠনটির দ্বিতীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আলী হোসেনকে সভাপতি এবং সানোয়ার হোসেন চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন ওবায়দুল কাদের।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা