kalerkantho

শনিবার । ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

পুরনো প্রকল্পে ভর দিয়ে বছর পার

রফিকুল ইসলাম ও মঈনুল ইসলাম, বরিশাল   

২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



পুরনো প্রকল্পে ভর দিয়ে বছর পার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর গঠিত আওয়ামী লীগ সরকারের এক বছর পার হয়েছে। বরিশালের ছয়টি আসনের সংসদ সদস্যরা এখনো নিজেদের নির্বাচনী এলাকায় নতুন কোনো উন্নয়নকাজ শুরু করতে পারেননি। আগের অসমাপ্ত প্রকল্পগুলো ফিতা কেটে উদ্বোধন করছেন তাঁরা।

এলাকার মানুষ বলছে, নিবাচনী ইশতেহার অনুযায়ী বর্তমান সংসদ সদস্যরা গত এক বছরে এলাকায় নতুন উন্নয়ন প্রকল্প শুরু করেছেন—এমনটা তাদের চোখে পড়েনি। আগের অসমাপ্ত উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর কাজই হচ্ছে। এ অবস্থায় বর্তমান মেয়াদে সংসদ সদস্যদের দেওয়া নতুন প্রতিশ্রুতি কতটা পূরণ হবে কিংবা আদৌ হবে কি না তা নিয়ে সন্দিহান এলাকার মানুষ।

তবে সংসদ সদস্যদের দাবি, সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে গিয়ে আগের উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর কাজ চলছে। সেগুলো শেষ হলেই বর্তমান সংসদ সদস্যদের গৃহীত প্রকল্পগুলো দৃশ্যমান হবে। আগের কাজ শেষ হতে সময় লাগায় নতুন প্রতিশ্রুতিগুলো পূরণ করতে একটু সময় লাগছে।

বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ কালের কণ্ঠকে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার টানা তিন মেয়াদ ক্ষমতায় আসায় শুধু বরিশাল নয়, দক্ষিণাঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর, তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, পদ্মা সেতুসহ বিভিন্ন অবকাঠামো। সড়ক, নৌ ও আকাশপথে যোগাযোগের অবকাঠামোগত ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এ ছাড়া একাধিক বড় উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। তিনি বলেন, ‘সাধারণত ছোট উন্নয়ন দৃশ্যমান হয় না। তবে সব একসঙ্গে দৃশ্যমান হলে উন্নয়নের চিত্র ফুটে উঠবে। আর তা করতে আওয়ামী লীগ সরকার ও বর্তমান এমপিরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।’

বরিশালের ১০টি উপজেলা নিয়ে ছয়টি সংসদীয় আসন গঠিত। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চারটি আসনে আওয়ামী লীগ ও দুটিতে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।

বরিশালের দক্ষিণ-পশ্চিমাংশের দুটি উপজেলা আগৈলঝাড়া-গৌরনদী নিয়ে গঠিত বরিশাল-১ আসন।  বর্তমানে এ আসনের সংসদ সদস্য বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রয়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য ও পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী) আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ। আগেরবার তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সর্বশেষ নির্বাচনে দুই উপজেলার অবকাঠামো উন্নয়নসহ বিভিন্ন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এর মধ্যে অন্যতম হলো গৌরনদী উপজেলাকে জেলায় রূপান্তর করা।

স্থানীয় লোকজনের দাবি, নির্বাচনের আগে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের কোনো উদ্যোগ চোখে পড়ছে না। এমনকি গৌরনদী উপজেলাকে জেলায় রূপান্তিত করার বিষয়টি এক বছর ধরে সভা-সমাবেশে সীমাবদ্ধ।

গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এইচ এম জয়নাল আবেদীন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের অভিভাবক সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত গৌরনদী ও আগৈলঝাড়ার অবকাঠামো উন্নয়নসহ, স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ বিভিন্ন খাতের উন্নয়নকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। আগৈলঝাড়া উপজেলায় স্থাপিত হতে যাচ্ছে বিশেষ অর্থনৈতিক জোন। পাশাপাশি গৌরনদী উপজেলাকে জেলায় রূপান্তর করার জন্য তিনি নিরলস কাজ করছেন।’

বানারীপাড়া ও উজিরপুর উপজেলা নিয়ে বরিশাল-২ আসনে আগের সংসদ সদস্য ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস। বর্তমানে এ আসনে সংসদ সদস্য ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহে আলম তালুকদার। স্থানীয় কয়েকজন প্রবীণ শিক্ষক জানান, একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর এই দুই উপজেলায় দৃশ্যমান নতুন কোনো প্রকল্প গ্রহণ কিংবা উন্নয়ন কর্মকাণ্ড দেখা যাচ্ছে না। যেগুলো চলমান রয়েছে তা সাবেকদের সময়ে গৃহীত প্রকল্প। বর্তমান সংসদ সদস্য সেগুলো উদ্বোধন করে যাচ্ছেন।

বানারীপাড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল হুদা তালুকদার কালের কণ্ঠকে বলেন, আওয়ামী লীগের ইশতেহার অনুযায়ী ‘গ্রাম হবে শহর’ ছাড়াও এলাকার উন্নয়নে বর্তমান সংসদ সদস্য উপজেলার অবকাঠামো উন্নয়ন, সন্ধ্যা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। অবশ্য সেতু নির্মাণের জন্য সংসদে প্রথম প্রস্তাব দিয়েছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম মনি। পরে তালুকদার মো. ইউনুসের তৎপরতায় সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা ও কারিগরি দিক যাচাই হয়। সেতুটি নির্মাণে বর্তমান সংসদ সদস্য শাহে আলম তালুকদারও কাজ করে যাচ্ছেন।

বাবুগঞ্জ ও মুলাদী উপজেলা নিয়ে বরিশাল-৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু। নির্বাচনের সময় ভোটারদের কাছে তাঁর সুনির্দিষ্ট কোনো প্রতিশ্রুতি না থাকলেও সাধারণ মানুষের জন্য যা করণীয় তা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বলে স্থায়ী লোকজন জানিয়েছে। তবে হিজলা, মুলাদী ও মেহেন্দীগঞ্জের একাংশের মানুষের দাবি, আড়িয়াল খাঁ নদের ওপর মীরগঞ্জে সেতু নির্মাণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছিলেন সংসদ সদস্য। তবে এ ব্যাপারে এখনো দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি নেই।

মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজলা নিয়ে গঠিত বরিশাল-৪ আসনের পরপর দুইবারের সংসদ সদস্য পংকজ নাথ। এলাকার উন্নয়নের জন্য দৃশ্যমান নতুন কোনো প্রকল্প গ্রহণ করা না হলেও চলমান রয়েছে বিগত সময়ে নেওয়া বিভিন্ন উন্নয়নকাজ। নদীভাঙন রোধের জন্য প্রায় ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ে মেঘনা নদীর উলনিয়া ও শ্রীপুরে একটি প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে সম্প্রতি। তবে একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে কিংবা আদৌ তা বাস্তবায়িত হবে কি না তা নিয়ে ভোটাররা সন্দিহান। বরিশাল সদর উপজেলা ও সিটি করপোরেশন এলাকা নিয়ে গঠিত বরিশাল-৫ আসন। এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য সাবেক সেনা কর্মকর্তা জাহিদ ফারুক শামীম। তাঁকে প্রতিমন্ত্রীর পদও দেওয়া হয়েছে। একাদশ নির্বাচনের সময়ে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের সড়ক পাকা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি। অথচ বরিশাল সদর উপজেলার বিভিন্ন রাস্তাঘাট ভাঙাচোরা এবড়োখেবড়ো। বেশির ভাগ রাস্তাই প্রায় চলাচলের অনুপযোগী। গত এক বছরেও তিনি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় স্থানীয় লোকজন বলছে, ‘শহর হতে বসেছে গ্রাম’।

বাকেরগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত বরিশাল-৬ আসনে পরপর দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন জাতীয় পার্টির আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় পার্টির সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারের স্ত্রী নাসরিন জাহান রত্না আমিন। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, পরপর তিনবার দল সরকার গঠন করলেও বাকেরগঞ্জে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হচ্ছে না। শুধু উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র আওয়ামী লীগের হওয়ায় এই দুই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে যেটুকু বরাদ্দ আসে তা দিয়ে যতদূর সম্ভব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালানো হচ্ছে। গোটা উপজেলায় সড়ক ও সেতুগুলো বেহাল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা