kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

ফরিদপুরে পুড়ে মরল মা-মেয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফরিদপুরে পুড়ে মরল মা-মেয়ে

ফিরিদপুর সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নের পূর্ব বিলমাহমুদপুর গ্রামের জুলমত মাতুব্বরের ডাঙ্গী এলাকায় গত শনিবার রাতে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মা-মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলো মা আলেয়া বেগম (৪১) ও মেয়ে আদুরী (৫)। আলেয়া বেগম ওই গ্রামের মুদি দোকানি আজাদ মোল্লার স্ত্রী। আর আদুরী আজাদ মোল্লার তিন মেয়ে ও দুই ছেলের মধ্যে সবার ছোট।

প্রতিবেশী জুলেখা বেগম জানান, রাত পৌনে ১১টার দিকে চিত্কার শুনে দেখি আলেয়াদের ঘরে আগুন লেগেছে। মুহূর্তে একটি বসতঘর ও গোয়ালঘর পুড়ে যায়। যে বসতঘরটি পুড়ে যায় ওই ঘরেই ঘুমাচ্ছিল আলেয়া ও আদুরী।

ফরিদপুর ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা নূরুল আলম দুলাল বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, টিনের ছাউনির ঘরটির বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে আগুনের সূত্রপাত। আলেয়া বেগম ঘরের মধ্যেই পুড়ে মারা যান। মারাত্মকভাবে দগ্ধ হয় তাঁর মেয়ে আদুরী। আদুরীকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নেওয়ার সময় রাত ৩টার দিকে আদুরী মারা যায়।

ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাসুম রেজা জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের নামে টিন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া দাফনসহ বিভিন্ন খরচ হিসেবে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে চরভদ্রাসন বাজারে গত শনিবার রাতে আগুনে পুড়ে গেছে সাতটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান।

এলাকাবাসী এবং ফরিদপুর ও সদরপুর থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফরিদপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মো. নিজামুদ্দীন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে আগুন লেগেছে।

এদিকে কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, কোটালীপাড়ার চৌধুরীহাটে গতকাল রবিবার মেসার্স নুর-আমিন ওয়ার্কশপ আগুনে পুড়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, দোকানের এক কর্মচারী ওয়েল্ডিং মেশিন দিয়ে কাজ করছিলেন। এ সময় অন্য কর্মচারী ড্রাম থেকে পেট্রল বোতলজাত করায় ওয়েল্ডিং মেশিন থেকে আগুনের ফুলকি এসে পেট্রলের ড্রামে পড়লে আগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা