kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

খুলনা ও আশুলিয়ায় দুই ছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’ গ্রেপ্তার ২

সোনারগাঁয় ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খুলনা ও আশুলিয়ায় দুই ছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’ গ্রেপ্তার ২

খুলনা ও ঢাকার সাভারে দুই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ দুই ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় আরেক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা এবং টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক ছাত্রকে বলাত্কারের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বিস্তারিত কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে:

খুলনা: নগরীর মহিলা কামিল মাদরাসার দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়েরের পর আরিফ বিল্লাহ ওরফে রাজন নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত আরিফ সোনাডাঙ্গা মডেল থানার এ কে এম আলী হোসেনের ছেলে।

সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ওসি মমতাজুল হক জানান, গত মঙ্গলবার পূর্ব পরিচয়ের জেরে আরিফ ওই ছাত্রীকে বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ছাত্রীটি তাঁর মাকে জানালে তিনি মামলা করেন। ওই দিন রাতেই নগরীর দৌলতপুর থানা এলাকা থেকে আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সাভার: গ্রামের বাড়ি থেকে সাভারের আশুলিয়ায় বসবাসরত মা-বাবার কাছে বেড়াতে আসা চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পাঁচ দিন পর গত মঙ্গলবার রাতে আসামি কুদরত আলীকে (২৬) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত কুদরত মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানার চামার গাঁ গ্রামের মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে।

আশুলিয়া থানার ওসি রিজাউল হক দীপু জানান, গত ২ জানুয়ারি শিশুটিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) সংলগ্ন আমবাগান এলাকায় ওই এলাকার বাসিন্দা কুদরত ধর্ষণ করে। পরের দিন ওই শিশুকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শিশুটির মা মামলা করেন।

সোনারগাঁ: উপজেলার বশিরগাঁও এলাকায় গত মঙ্গলবার সিয়াম মিয়া নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে সিয়াম পলাতক।

মির্জাপুর: গত ১ জানুয়ারি উপজেলার আনাইতারা ইউনিয়নের ফতেপুর ময়নাল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রকে স্কুল পরিচালনা পরিষদের সদস্য খন্দকার শামীম বলাত্কারের চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্র শামীমের বিরুদ্ধে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কবির হোসেন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা