kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

ট্রাক কেড়ে নিল আনিকার নতুন জামার স্বপ্ন

জয়পুরহাটে মা-মেয়েসহ সারা দেশে আটজনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ট্রাক কেড়ে নিল আনিকার নতুন জামার স্বপ্ন

প্রতীকী ছবি

বাবার কাছে বায়না ছিল আনিকার। সেই বায়না নতুন জামার। বাবা কথাও দিয়েছিলেন, পরীক্ষায় ভালো ফল এনে দিতে পারলে মেয়েকে নতুন জামা কিনে দেবেন। বাবা নুর আলম ঢাকায় ঝালাই মিস্ত্রির কাজ করেন। সকালে বাবার সঙ্গে  মোবাইল ফোনে কথা বলে শিশু শিক্ষার্থী আনিকা আক্তার পরীক্ষা দিতে মা রিফা আক্তারের (২৭) সঙ্গে ব্যাটারিচালিত ভ্যানে উঠে ছোটে স্কুলের দিকে। পথে পেছন থেকে একটি ট্রাক তাদের সজোরে ধাক্কা দিলে রাস্তায় নিথর মা-মেয়ে। নিমিষেই শেষ হয়ে যায় আনিকার নতুন জামার স্বপ্ন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে মর্মস্পর্শী দুর্ঘটনাটি ঘটেছে জয়পুরহাট সদর উপজেলার জলাটুল সড়কের চাকীপাড়া মোড়ে।

তাদের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। বাবা নুর আলমকে ফোন করে ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার কথা বলা হলেও দুর্ঘটনায় স্ত্রী-সন্তানের মৃত্যুর কথা তখনো জানানো হয়নি। দুর্ঘটনার পর দুজনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ট্রাকটি জব্দ করেছে।

নাতি আনিকার মৃত্যুর খবর শোনার পর থেকে কান্না থামছে না দাদি নুর  বানুর। বিলাপ করে কাঁদছেন আর বলছেন, ‘পরীক্ষার পর বাপে নতুন কাপড় দিবে, সেই খুশিতে সোনা হামার কত আনন্দ করত। হামার সোনার আর কাপড় পরা হলো না। তোমরা হামার সোনাক অ্যানে দেও। হামি একবার সোনার মুখ দেখমো।’   

জানা গেছে, দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাকটি কিছুদিন আগে চালক আব্দুল করিম কেনেন। গতকাল ওই সড়কে চালকের সহযোগী আরফান আলী নতুন ট্রাকটি চালাতে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বর্ণমালা প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক জোবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘আনিকা তাঁর স্কুলের শিশু শিক্ষার্থী। তার ক্লাস রোল ৩৬। পড়ালেখায় তার প্রচণ্ড আগ্রহ ছিল।’

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি শাহরিয়ার খান বলেন, ‘মা-মেয়ের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে রায়মনি নামক স্থানে গত সোমবার রাতে ভালুকাগামী একটি প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিলে পড়ে পুলিশের এএসআই আমিনুল ইসলাম (৩৫) ও তাঁর শ্যালক জাহিদুল ইসলাম (২২) নিহত হয়েছেন। ত্রিশাল পুলিশ দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এএসআই আমিনুল ইসলাম ঢাকার শনির আখড়া এলাকার কাশেম শিকদারের ছেলে। শ্যালক জাহিদুল ইসলাম ভালুকা শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের শফিকুল ইসলামের ছেলে।

এদিকে ময়মনসিংহের ভালুকায় রোলারের চাকায় পিষ্ট হয়ে মো. শাজাহান মিয়া (৫০) নামে এক চালকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল দুপুরে উপজেলার জামিরদিয়া এলাকার পারটেক্স ডেনিশ নামক একটি কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। শাজাহান মিয়া লক্ষ্মীপুরের শ্যামগঞ্জ গ্রামের ওয়ালিউল্লার ছেলে।

এদিকে বাগেরহাটে বাসচাপায় বায়জিদ শেখ (৬) নামের পথচারী এক শিশু নিহত হয়েছে। গতকাল সকালে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ-সাইনবোর্ড সড়কের কচুয়ার গাবতলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। বায়জিদ কচুয়ার কিসমত পিংগুড়িয়া গ্রামের বাদশা শেখের ছেলে।

সাতক্ষীরার দেবহাটার সখীপুর বাজার মোড়ে গতকাল দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় শফিকুল ইসলাম (৬০) নামের এক পথচারী নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার ঘলঘলিয়া রহিমপুর গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে।

গাইবান্ধা পলাশবাড়ী পৌর শহরের চৌমাথা মোড়ের সৈয়দপাজার সামনে গত সোমবার রাতে রংপুরগামী একটি মালবোঝাই মিনিট্রাকের চাপায় খায়রুল ইসলাম (৬০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। খায়রুল সাদুল্যাপুরের ধাপেরহাট ইউনিয়নের মধ্যপাড়া (সদ্দারপাড়া) গ্রামের মৃত খেজের উদ্দিনের ছেলে।

এদিকে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গতকাল সকালে রাস্তায় বাঁক ঘোরানোর সময় ব্যাটারিচালিত একটি অটোবাইক উল্টে আট যাত্রী আহত হয়েছে।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন জয়পুরহাট, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, গাইবান্ধা এবং ময়মনসিংহের ত্রিশাল, ভালুকা ও গফরগাঁও প্রতিনিধি]

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা