kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়a

১৩ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

গোপালগঞ্জ ও বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি   

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৩ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ১৩ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসচক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সাত শিক্ষার্থীকে একাডেমিক কার্যক্রম থেকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। এদিকে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগ আন্দোলনের সময় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় আরো ছয় শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর মধ্যে পাঁচ শিক্ষার্থীকে আজীবন ও এক শিক্ষার্থীকে দুই সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার করা হয়। গতকাল রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. নূরউদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানা যায়।

প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে অভিযুক্ত সাত শিক্ষার্থী হলেন এআইএস বিভাগের এমবিএ শিক্ষার্থী বাবু শিকদার বাবু; ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী মো. নয়ন খান, মনিমুল হক ও নিয়ামুল ইসলান; আইন বিভাগের অমিত গাইন ও মানিক মজুমদার এবং সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের রনি খান। তাঁদের দুই সেমিস্টার একাডেমিক বহিষ্কার (জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৯, জানুয়ারি-জুন ২০২০) এবং হল থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়।

অন্যদিকে হামলার ঘটনায় ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের রাফিজুর ইসলাম, নুরউদ্দিন নাহিদ, আরিফুল ইসলাম সাকিব, মো. মাজহারুল ইসলাম মিশন ও রাহাত আল আহসানকে স্থায়ী একাডেমিক বহিষ্কার এবং ইসমাইল শেখকে দুই সেমিস্টার একাডেমিক বহিষ্কার (জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৯, জানুয়ারি-জুন-২০২০) করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. নূরউদ্দিন আহমেদ জানান, শৃঙ্খলা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে তাঁদের ক্লাসে আসতে নিষেধও করা হয়েছে।

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ, শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন : বশেমুরবিপ্রবির সহকারী প্রক্টর ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মো. হুমায়ন কবিরের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ এনে তাঁর শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন নেপালি শিক্ষার্থীরা। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাগ্রিকালচার বিভাগের নেপালি এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে গতকাল রবিবার দুপুরে এ মানববন্ধন করেন তাঁরা। প্রশাসন ভবনের সামনে ঘণ্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে আন্দোলনকারীরা ব্যানার ও বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে ওই শিক্ষকের শাস্তির দাবি জানান।