kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারকে পিটিয়ে হত্যা

‘প্রসিকিউশন টিম গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘প্রসিকিউশন টিম গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে’

‘আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় যেই মুহূর্তে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে তখন থেকেই মামলাটির দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রধানমন্ত্রী আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন। ইতিমধ্যে প্রসিকিউশন সার্ভিসকে এই মামলা হ্যান্ডেল করার জন্য তৈরি হওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।’

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল বুধবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন, আবরার হত্যা মামলার চার্জশিট দ্রুত রিসিভ করতে একটি প্রসিকিউশন টিম গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। অভিযোগপত্র দেওয়ার পর বিচারকাজ শুরু করে দ্রুত শেষ করা হবে।

আবরার হত্যা মামলার বিচারকাজ কবে শুরু হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনো ফৌজদারি মামলার এজাহার দেওয়ার পর তদন্ত শুরু হয়। সে অনুযায়ী তদন্ত হচ্ছে। অভিযুক্ত অনেককে আটক করা হয়েছে। অনেকে অপরাধ স্বীকার করেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কিছুদিন আগে বলেছেন যে দ্রুততম সময়ে এই মামলার চার্জশিট দেবেন। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচারকাজ দ্রুত শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন। সে জন্য প্রসিকিউশন প্রস্তুত করা হচ্ছে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘একটি হত্যাকাণ্ড এক সেকেন্ড বা এক মিনিটের মধ্যে ঘটানো সম্ভব। কিন্তু বিচার করতে কিছু আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে এগোতে হবে। সেই আইনি প্রক্রিয়ায় কয়েকটি ধাপ আছে। পর্যায়ক্রমে ধাপগুলো পার হতে হয়। কিছুটা সময় তো লাগবেই। এটুকু বলতে পারি আবরার হত্যা মামলা দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করা হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিং প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, কোনো ছাত্র-ছাত্রী যদি র‌্যাগিংয়ের শিকার হন এবং এ বিষয়ে নালিশ করেন তাহলে ওই অপরাধকে বিচারের আওতায় আনা হবে। শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। তিনি বলেন, র‌্যাগিং শব্দটি আইনে নেই। কিন্তু সামান্য মারধরের জন্যও আইন আছে। কেউ চড়-থাপ্পড় মারলেও দণ্ডবিধির ৩২৩ ধারায় শাস্তির বিধান রয়েছে। সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ছাত্র-ছাত্রীদের আপনারা উৎসাহিত করবেন র‌্যাগিং হলেই যেন নালিশ করে। আর নালিশ করলে বিচারের আওতায় আনা হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা