kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঢাকা কলেজ ছেড়ে গেল আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ

ভর্তি হবে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঢাকা কলেজ ছেড়ে গেল আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিহত শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আবরার ফায়াজ ঢাকা কলেজ থেকে ছাড়পত্র নিয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এই ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে বলে কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ টি এম মইনুল হোসাইন।

আবরার ফাহাদের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর ফায়াজ আর ঢাকা কলেজে পড়ালেখা করতে আগ্রহী নয়। সে তার নিজ এলাকা কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে ভর্তি হতে চায়। এ জন্য সে ঢাকা কলেজ থেকে ছাড়পত্র নিয়েছে। ফায়াজ একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ বলেন, ‘ফায়াজ আর ঢাকা কলেজে পড়তে চায় না। তাই তার ইচ্ছাতেই আমরা তাকে ছাড়পত্র দিয়েছি।’

একজন শিক্ষার্থীর কলেজ পরিবর্তনের জন্য যে কলেজ থেকে সে চলে যাবে তাদের ছাড়পত্র দিতে হয়। আর যে কলেজে ভর্তি হবে তাদের আসন শূন্য থাকতে হয়। এরপর সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদনের মাধ্যমে কলেজ পরিবর্তন করা যায়। ফায়াজ যেহেতু আবরার ফাহাদের ছোট ভাই, তাই ব্যাপারটি সম্পূর্ণই ভিন্ন। দ্রুততার সঙ্গে তার কালেজ পরিবর্তনের বিষয়টি দেখবে সংশ্লিষ্ট বোর্ড।

ভাইয়ের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর আবরার ফায়াজ ঢাকায় পড়তে অনীহা প্রকাশ করে। গত ১২ অক্টোবর কুষ্টিয়ায় নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সে জানায়, ভাইকে হারিয়ে সে একা হয়ে পড়েছে। ভাই তার সব বিষয়ে খেয়াল রাখত। ভাই-ই নেই, তাই সেও ঢাকায় থাকবে না।

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া জানান, আরবার ফায়াজ আর ঢাকা কলেজে পড়বে না বলে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল গতকাল তা বাস্তবায়িত হয়েছে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নির্যাতনে একমাত্র বড় ভাই আবরার ফাহাদ নিহত হলে একাকিত্বসহ নানা শঙ্কার কারণে ফায়াজ আর ঢাকা কলেজে পড়বে না বলে গত শনিবার কালের কণ্ঠকে জানিয়েছিল।

গতকাল ঢাকা কলেজ থেকে ছাড়পত্র নিয়ে কুষ্টিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়েছে ফায়াজ। সে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে ভর্তি হবে। মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে হারানোর পর পরিবারের সদস্যরা ফায়াজকে আর ঢাকায় পড়াতে চাচ্ছে না বলে ঢাকা কলেজ থেকে ছাড়পত্র নেওয়ার সময় তার বাবা বরকত উল্লাহ উপস্থিত থেকে এ কথা জানিয়েছেন।

আবরারের বারা বরকত উল্লাহ বলেন, ‘ছোট ছেলে ফায়াজের ছাড়পত্র চেয়ে ঢাকা কলেজে আবেদন করা হলে কলেজ কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ায় এক দিনের মধ্যে আমরা ছাড়পত্র হাতে পেয়েছি। দু-এক দিনের মধ্যে আমরা ফায়াজকে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে ভর্তি করব।’

কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ কাজী মনজুর কাদির বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক আমার কলেজের শূন্য আসনে আবরারের ছোট ভাই ফায়াজকে ভর্তির বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছি। সে আসামাত্র তাকে ভর্তি করে নেওয়া হবে।’

গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষের আবাসিক ছাত্র আবরার ফাহাদকে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেন।

 

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা