kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ইসি ভবনে আগুন

বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা

এক শ ইভিএম নষ্ট হয়ে থাকতে পারে

বিশেষ প্রতিনিধি   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা

নির্বাচন কমিশন ভবনের নিচতলায় রবিবার রাতে আগুন লাগে। তাতে পুড়ে যায় এক শর মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)। ছবিটি গতকাল তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

অগ্নি দুর্ঘটনায় বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে নির্বাচন কমিশন। গত রবিবার রাতে ভবনের বেইসমেন্টে আগুন লাগে। সেখানে প্রায় সাড়ে চার হাজার ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) থাকলেও আগুনে প্রায় এক শর মতো ইভিএম ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকতে পারে।

নির্বাচন কমিশনের এনআইডি উইংয়ের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আশঙ্কার তুলনায় ক্ষতি কম হয়েছে। কিছু ইভিএমের ব্যালট ইউনিট পুড়ে গেছে। এ ছাড়া আগুন নেভাতে পানি ব্যবহারের কারণে কিছু ইভিএম ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকতে পারে। তবে প্রটেক্টর থাকায় পানিতেও খুব বেশি ক্ষতি হওয়ার কথা নয়। সব মিলিয়ে সংখ্যাটি এক শ ক্রস করবে না। আমাদের প্রাথমিক ধারণা ১৫ থেকে ২০টি ইভিএম নষ্ট হয়ে থাকতে পারে। এ  বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষ হওয়ার পর ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।’ 

ভবনের বেইসমেন্টে কতগুলো ইভিএম ছিল—এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘প্রায় সাড়ে চার হাজার ইভিএম ছিল। আর যে অংশে আগুন লাগে সেখানে ছিল এক হাজার ইভিএম। এসব ইভিএমের ওপরে দেয়ালের ইলেকট্রিক কেবলে আগুন লাগে। আগুনে কেবল বক্স ও এসি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নিচে তেমনভাবে পোড়েনি। ইভিএমের ব্যালট ইউনিট, মনিটর, কন্ট্রোল ইউনিট তেমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। আগুন দুই মিটার এলাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে এনআইডি মহাপরিচালক বলেন, ‘আমাদের প্রাথমিক ধারণা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। অন্য কোনোভাবে আগুন লাগার সুযোগ কম। বেইসমেন্টে কোনো হিটার ব্যবহার হয় না। বাইরের কারো সেখানে প্রবেশের সুযোগও নেই। তা ছাড়া আগুন লেগেছে বেইসমেন্টের মাঝামাঝি অংশে।’

এনআইডি মহাপরিচালক আরো জানান, এ দুর্ঘটনার জন্য রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে সব কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা ব্যাহত হবে না। এনআইডির স্মার্ট কার্ড তৈরির উপকরণেরও ক্ষতি হয়নি।’

প্রসঙ্গত, গত রবিবার রাত ১১টার দিকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভবনের বেইসমেন্টে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল সোমবার সকালে ইসির উপসচিব (সাধারণ সেবা) রাশেদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জানানো হয়, কমিটির সভাপতি ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেছুর রহমান ও সদস্যসচিব সহকারী সচিব (সেবা-২) খ ম আরিফুল ইসলাম। চারজন সদস্য হলেন—জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, গণপূর্তের ই/এম বিভাগ-৮-এর নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল হালিম, গণপূর্ত বিভাগ-২-এর নির্বাহী প্রকৌশলী শাহ ইয়ামিন-উল-ইসলাম এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের একজন প্রতিনিধি। কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

 

 

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা