kalerkantho

লৌহজংয়ের গ্রামে দুটি ‘বাঘ’, পুলিশ মোতায়েন

বন বিভাগ বলছে—বাগডাসা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লৌহজংয়ের গ্রামে দুটি ‘বাঘ’, পুলিশ মোতায়েন

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার এক গ্রামে দুটি মেছো বাঘের বিচরণ করার খবরে জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। মসজিদে মসজিদে মাইকিং করে এ ব্যাপারে এলাকাবাসীকে সাবধান করা হচ্ছে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শনিবার রাতে গ্রামটি পরিদর্শন শেষে পুলিশ মোতায়েন করেছেন। তবে বন বিভাগ বলছে, এগুলো মেছো বাঘ নয়; বাগডাসা।

জানা যায়, ফুলকচি গ্রামে শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রথম এই বাঘ দেখা যায়। গ্রামের লোকজন ধাওয়া দেওয়ার পর বাঘ দুটি জঙ্গলে পালিয়ে যায়। শনিবার সেগুলো আবার লোকালয়ে বেরিয়ে এলে জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে রাত ৯টায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ইউএনওকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি ঘটনাস্থলে এসে গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে তাদের আশ্বস্ত করেন।

ইউএনও কাবিরুল ইসলাম খান জানান, উপজেলার খিদিরপাড়া ইউনিয়নের ফুলকচি গ্রামে শনিবার রাত থেকে বিভিন্ন মসজিদে মাইকিং করে রাতে কাউকে একা ঘর থেকে বেরোতে নিষেধ করা হচ্ছে। গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সারা রাত পুলিশ টহল দিয়েছে। এ ছাড়া গতকাল রবিবার বন বিভাগের দায়িত্বশীলরা গ্রামটি ঘুরে এসেছেন।

গ্রামবাসীর সঙ্গে আলাপের উল্লেখ করে তিনি জানান, শনিবার সন্ধ্যার পর বাঘ দুটি লোকালয়ে বেরিয়ে এলে গ্রামবাসী ধাওয়া দেয়। পরে সেগুলো গ্রামের জঙ্গলে পালিয়ে যায়। গ্রামবাসী মোবাইল ফোন সেটে দূর থেকে বাঘ দুটির ছবিও তুলেছে। এ দুটি মেছো বাঘ হতে পারে। পরিদর্শনকালে ইউএনওর সঙ্গে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দ মোরাদ আলী উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে গতকাল লৌহজং উপজেলা বন কর্মকর্তা আমানুল্লাহ সরকার গ্রামটি পরিদর্শনকালে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের ধারণ করা ছবি দেখেন। কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, দেখতে বাঘের মতো হলেও এগুলো বাঘ নয়; বাগডাসা। এগুলো মানুষের কোনো ক্ষতি করে না। এ জাতীয় প্রাণী সাধারণত ব্যাঙ, ইঁদুর ও হাঁস-মুরগি খেয়ে থাকে। গ্রামের মসজিদের ইমামদের বলে দেওয়া হয়েছে মাইকে যেন তাঁরা প্রচার করেন যে এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

তবে বন বিভাগের কথায় আশ্বস্ত হতে পারছে না গ্রামবাসী। ফুলকচি গ্রামের বাসিন্দা ও লৌহজং উপজেলা যুবলীগের কার্যকরী সদস্য মাকসুদ রানা বলেন, ‘গ্রামবাসীর সঙ্গে মিলে আমি নিজেও বাঘ দুটিকে ধাওয়া করেছি, ছবিও তুলেছি। বন বিভাগ যা বলেছে তাতে আমাদের আস্থা নেই। সর্বশেষ গতকাল বিকেল ৪টার দিকে একটি বাঘকে পার্শ্ববর্তী বাসুদিয়া গ্রামে দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে বাঘ দুটি পরস্পর বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।’

মন্তব্য